Home / রাজনীতি / ওবায়দুল কাদেরের নির্দেশে পুলিশ আমাকে অবরুদ্ধ করেছে : মওদুদ

ওবায়দুল কাদেরের নির্দেশে পুলিশ আমাকে অবরুদ্ধ করেছে : মওদুদ

ক্রাইম প্রতিদিন : বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ অভিযোগ করেছেন, তাঁকে নিজ বাড়িতে পুলিশ অবরুদ্ধ করে রেখেছে। তাঁর বক্তব্য, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের নির্দেশেই পুলিশ এসব কাজ করছে।

মওদুদ আহমদ বলেছেন, শনিবার বেলা সাড়ে তিনটা থেকে নোয়াখালী কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার সিরাজপুর ইউনিয়নের মানিকপুর গ্রামে নিজ বাড়িতে অবরুদ্ধ অবস্থার মধ্যে রয়েছেন তিনি। এ কারণে বিকেলে পূর্বনির্ধারিত ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় ও গণসংযোগ কর্মসূচিতে তিনি অংশ নিতে পারেননি।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির এই সদস্যের অভিযোগ, আট দিন ধরে তিনি নির্বাচনী এলাকায় নিজ বাড়িতে অবস্থান করছেন। পুলিশ তাঁকে দলীয় কোনো ইফতার অনুষ্ঠান বা অন্য কোনো দলীয় কর্মসূচিতে অংশ নিতে বাড়ি থেকে বের হওয়ার সুযোগ দেয়নি। উল্টো তাঁর সঙ্গে দেখা করতে আসা উপজেলার বিভিন্ন এলাকার নেতা-কর্মীদেরও পুলিশ নানাভাবে হয়রানি করেছে।

স্থানীয় লোকজন বলছেন, ব্যারিস্টার মওদুদ কোম্পানীগঞ্জে আসার পর থেকেই তাঁর বাড়ির চারপাশে পুলিশ সদস্যরা অবস্থান করছেন। আর ঈদের দিন তাঁর বাড়ি থেকে বের হওয়ার রাস্তায় একটি ভ্যানগাড়ি আড়াআড়িভাবে দাঁড় করিয়ে রাখা হয়েছে।

মওদুদ আহমদের অভিযোগ, ‘আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের নির্দেশে পুলিশ আমাকে অবরুদ্ধ করে রেখেছে। কাদেরের নির্দেশের পুলিশ এসব কাজ করছে।’ তিনি বলেন, ‘ওবায়দুল কাদের যত বড় রাজনৈতিক দলের নেতাই হন না কেন, তিনি তাঁর এলাকায় গণতন্ত্রের কোনো সুযোগ রাখেন নাই। এখানে বিরোধী মত প্রকাশের কোনো সুযোগ নেই।’

অবরুদ্ধ রাখার বিষয়ে সংশ্লিষ্ট থানার ওসি ও জেলা পুলিশ সুপারের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন বলে জানান ব্যারিস্টার মওদুদ। তিনি বলেন, পুলিশ জানিয়েছে, কথিত নিরাপত্তার অজুহাতে বাড়ি থেকে বের হওয়া উচিত হবে না। কিন্তু এসব ওবায়দুল কাদেরের নির্দেশে হচ্ছে বলে মনে করেন মওদুদ।

মওদুদকে অবরুদ্ধ করা হয়নি বলে জানান কোম্পানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আসাদুজ্জামান। তিনি প্রথম আলোকে বলেন, ‘মওদুদ আহমদ দেশের জ্যেষ্ঠ একজন রাজনৈতিক নেতা। সন্ধ্যার আগমুহূর্তে তিনি বাড়ি থেকে বের হয়ে কোথাও গণসংযোগে গেলে তাঁর নিরাপত্তার বিঘ্ন ঘটতে পারে বিধায় তাঁকে বাড়ি থেকে বের না হওয়ার অনুরোধ করা হয়েছে।’

Print Friendly, PDF & Email

আরও পড়ুন.......

শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন
  • 26
    Shares