সংবাদ শিরোনাম
Home / ধর্ম / কুরআনের নামে কসম করে ভেঙ্গে ফেললে করণীয় কী?

কুরআনের নামে কসম করে ভেঙ্গে ফেললে করণীয় কী?

ক্রাইম প্রতিদিন : একজন প্রশ্নকর্তা জানতে চেয়েছেন, আমার সাথে কর্মরত এক কর্মকর্তা বিয়ের পর তার বিবির সাথে কোরআনের কসম করেন যে, সে আর কোন মেয়ের সাথে কথা বলবে না। কিন্তু ঘটনাক্রমে সে মেয়েদের সাথে মাঝে মধ্যে কথা বলে। এখন সে পেরেশানীতে আছে। কসমের বদলা সে কি করবে?

উত্তর
উক্ত কর্মকর্তার উচিত কসমের কাফফারা আদায় করে দেয়া।

কাফফারা আদায় পদ্ধতি
ব্যক্তি তার পরিবারকে নিয়ে মধ্যম ধরণের যে খাবার গ্রহণ করে এমন খাবার দশজন মিসকিনকে দুই বেলা খাইয়ে দিবে। অথবা দুই জোড়া কাপড় দিয়ে দিবে।
সদকায়ে ফিতির পরিমাণ টাকাকে একদিনের খরচ ধরা হবে। সেই হিসেবে সদকায়ে ফিতর পরিমাণকে দশ দিয়ে গুণ দিলে যত টাকা হয়,তাই হবে কসমের কাফফারা।

যেমন গত রমজানে সদকায়ে ফিতির ছিল সর্বনিম্ন ৬৫ টাকা। তো সেই হিসেবে ৬৫০[ ছয় শত পঞ্চাশ টাকা] হবে কসমের কাফফারা। এটি বর্তমান মূল্য হিসেবে ধরা হয়েছে। আগে পরে পরিবর্তিত হতে পারে।

যদি টাকা দিয়ে কাফফারা আদায় করতে সক্ষম না হন। তাহলেই কেবল তিনটি রোযা রাখার মাধ্যমে কাফফারা আদায় করতে হবে।

Print Friendly, PDF & Email