Home / সারাদেশ / কুড়িগ্রামে বিয়ের দাবীতে প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকার অনশন

কুড়িগ্রামে বিয়ের দাবীতে প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকার অনশন

ক্রাইম প্রতিদিন, শফিকুল ইসলাম দ্বারা,উলিপুর (কুড়িগ্রাম) : কুড়িগ্রামের উলিপুরে বিয়ের দাবীতে আজ ৬ দিন ধরে প্রেমিকের বাড়িতে মাদ্রাসা শিক্ষার্থী জমেনা বেগম (১৩) অনশন করছে। প্রতারক প্রেমিক পলাতক থাকায় ঘটনার সমাধানে হিমসিম খাচ্ছেন এলাকারাসী। ঘটনাটি ঘটেছে, উপজেলার বেগমগঞ্জ ইউনিয়নের দক্ষিন ইসলামপুর গ্রামে।

জানা গেছে, বেগমগঞ্জ ইউনিয়নের দক্ষিন ইসলামপুর গ্রামের খয়বর আলীর পুত্র জাহাঙ্গীর আলমের (১৪) সাথে একই গ্রামের আমাতুল্যার মাদরাসা পড়–য়া কন্যা জামেনা বেগম (১৩) দীর্ঘ ৬ মাস পূর্ব থেকে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। কিছুদিন পর জাহাঙ্গীর আলম ওই ছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তোলে। এক পর্যায়ে এ ঘটনা পরিবারের লোকজন জেনে যাওয়ায় তাদের মাঝে দূরত্বের সৃষ্টি হয়। গত ৩১ মে বৃহস্পতিবার ওই ছাত্রী বিয়ের দাবীতে প্রেমিক জাহাঙ্গীর আলমের বাড়িতে অবস্থান নেয়। এ সময় ছেলের মামা মাহে আলম ভাগ্নেকে ঘটনা আড়াল করতে অন্যত্র সরিয়ে দেয়। গত রবিবার সন্ধার পর এই প্রতিবেদকে মেয়ের অনশনের বিষয়টি নিশ্চিত করে। ওই শিক্ষার্থী প্রতিবেদকে জানান, ‘প্রেমিক জাহাঙ্গীর আলম বিয়ে করার প্রলোভন দেখিয়ে একাধিকার শারীরিক সম্পর্ক করেছে। আমি তাকে বিয়ের জন্য চাপ দিলে সে নানান অজুহাত দেখায়। কয়েকদিন থেকে সে আমার সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে দেয়। আমি তার বাড়িতে আসলে জাহাঙ্গীরের মা জমিলা বেগম আমাকে মারধর করেন এবং বাড়ি থেকে চলে যেতে বলেন। বিষয়টি স্থানীয়ভাবে মিমাংসার চেষ্টা করা হলেও প্রেমিক জাহাঙ্গীর আলম পলাতক থাকার কারণে তা ব্যর্থ হয়ছে।

বেগমগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বেলাল হোসেন জানান, উভয় পক্ষকে ঘটনা মিমাংসার আহবান করা হলে ছেলে অনুপস্থিত থাকায় শালিস কার্যক্রম স্থগিত করা হয়। ছেলের মা তার পুত্রকে হাজির করার জন্য সময়ের আবেদন করেন।
উলিপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোস্তাফিজার রহমান বলেন, এ বিষয়ে কেউ কোন অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবেন বলে জানান।

Print Friendly, PDF & Email

এই মুহূর্তে অন্যরা যা পড়ছে

শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন
  • 35
    Shares
x

Check Also

ছাত্রলীগ কর্মী নিহত, পুলিশের ভ্যান পুড়িয়ে জনতার বিক্ষোভ

ক্রাইম প্রতিদিন, গোপালগঞ্জ : কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারী উপজেলায় ...