Home / গ্রামীণ ব্যাংকের কিস্তির টাকা দিতে না পেরে গায়ে কেরোসিন ঢেলে আত্মহত্যা

গ্রামীণ ব্যাংকের কিস্তির টাকা দিতে না পেরে গায়ে কেরোসিন ঢেলে আত্মহত্যা

ক্রাইম প্রতিদিন : সিরাজগঞ্জের চৌহালীতে ঋণের টাকা পরিশোধ করতে না পেরে এক গৃহবধূ শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

নিহত জরিনা খাতুন (২৮) উপজেলার পশ্চিম খাসকাউলিয়া গ্রামের দরিদ্র কৃষিশ্রমিক আব্দুর রউফের স্ত্রী। তাদের পরিবারে পাঁচ শিশু সন্তান রয়েছে। এ ঘটনায় এলাকাজুড়ে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

পরিবারের সদস্য এবং স্থানীয়রা জানান, যমুনার বারবার ভাঙনে বিপর্যস্ত জরিনা খাতুন অভাবের কারণে গ্রামীণ ব্যাংকের পার্শ্ববর্তী টাঙ্গাইল জেলার নাগরপুর উপজেলার শাহজানী ভাড়রা ইউনিয়ন শাখা অফিস থেকে এ বছরের মে মাসে দু’দফায় ২০ এবং ১০ হাজার টাকা ঋণ গ্রহণ করে। এরপর থেকে নিয়মিত ৭৫০ টাকা সপ্তাহে কিস্তি দিয়ে আসছিল। কিছুদিন ধরে তার কিস্তি দেয়ার মতো কিছু ছিলো না। ঠিকমতো খাবারও জুটতো না। রবিবার সকালে ছিল সপ্তাহিক কিস্তির টাকা দেবার সময়। অভাবের কথা শুনে এনজিও গ্রামীণ ব্যাংকের মাঠ কর্মীরা আগে থেকেই টাকা দেয়ার জন্য চাপ দিচ্ছিল। তাই এ নিয়ে দুশ্চিন্তা ছিল তার।

কোনোভাবেই কিস্তির টাকা সংগ্রহ করতে না পেরে শনিবার সকালে নিজের ঘরে শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা চালায়। এতে শরীরের অধিকাংশ অংশ পুড়ে যায়। তখন স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে চৌহালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে তাকে দ্রুত ঢাকায় নেবার পরামর্শ দেয় চিকিৎসকরা। পরে ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার পথে রাত একটার দিকে তিনি মারা যান।

নিহত জরিনার স্বামী আব্দুর রোউফ অভিযোগ করেন, কিস্তির টাকার জন্য গ্রামীণ ব্যংকের কর্মীরা নানান ভাবে চাপ দিত। অপমানের ভয়ে জরিনা আত্মহত্যা করেছেন।

এ বিষয়ে গ্রামীণ ব্যাংক ভাড়রা শাখা ম্যানেজার রঞ্জু আহমেদ জানান, আমরা টাকার জন্য আসলে খুব বেশি চাপ দেইনি। জরিনার মৃত্যুর কথা শুনে আমরা তার বাড়ি গিয়েছি, পরিবারের সদস্যদের সান্তনা দিয়েছি। পাওনা টাকা মওকুপসহ বীমার টাকা পরিবারের কাছে হস্তান্তরের চেষ্টা চলছে।

থানার ওসি আকরাম হোসেন জানান, বিষয়টি নিয়ে আমরা অবহিত নই। অভিযোগ আসলে খতিয়ে দেখা হবে।

আরও পড়ুন.......

শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন
  • 5.6K
    Shares