Home / অর্থনীতি / কৃষি / নওগাঁয় ভারি বৃষ্টিপাতে তলে গেছে ৪০ হেক্টর জমির পাকা ধান!

নওগাঁয় ভারি বৃষ্টিপাতে তলে গেছে ৪০ হেক্টর জমির পাকা ধান!

ক্রাইম প্রতিদিন, কাজী আনিছুর রহমান,,রাণীনগর (নওগাঁ) : নওগাঁর রাণীনগরে শনিবার সন্ধ্যায় ও রবিবার সকালে কয়েক দফায় ভারি বৃষ্টিপাত আর কালবৈশাখী ঝড়ের কারনে সদ্য পাকা প্রায় ৪০ হেক্টর জমির বোরো ধান পানির নিচে তলে গেছে। এছাড়া অধিকাংশ এলাকায় পাকা ধান নিয়ে চরম বিপাকে পড়েছেন কৃষকরা।

জানা গেছে, চলতি বছরে উপজেলার ৮টি ইউনিয়নে ১৮ হাজার ৪ শ’ ২৫ হেক্টর জমিতে ইরি-বোরো ধান জমিতে ইরি-বোরো ধানের চাষ হয়েছে। ইতি মধ্যে পুরোদমে শুরু হয় বোরো ধান কাটা-মাড়াইয়ের কাজ। উপজেলার কৃষকরা জিরাশাইল, খাটো-১০, স্বর্ণা-৫ জাতের ধান চাষ করেছেন। ধান কাটার শুরুতেই বিঘা প্রতি ২০/২২ মন হারে ধান উৎপাদন হচ্ছে। কিন্তু গত শনিবার সন্ধ্যা ও রবিবার সকালে কয়েক দফায় ভারী বৃষ্টিপাত ও কালবৈশাখী ঝড়ে উঠতি পাকা ধান জমিতে শুয়ে পড়ায় বিপাকে পড়েছে কৃষকরা। গত দুই দিনের ভারি বৃষ্টিপাতে রক্তদহ বিল এলাকা ও উপজেলার মেইন রাস্তার দুই পাশের নিচু শ্রেণীর প্রায় ৪০ হেক্টর জমির ধান পানিতে তলে গেছে। জমি থেকে বৃষ্টির পানি ধীরে ধীরে নামার কারণে ফলন বিপর্যয়ের আশংকা দেখা দিয়েছে। বিশেষ করে নিম্মাঞ্চলের জমিতে বৃষ্টি আর ঢলের পানিতে প্রায় হাঁটু জলে পরিনিত হওয়ায় ধান কাটা শ্রমিকদের কাজ করাতে গুনতে হচ্ছে চড়া মূল্য।
উপজেলার সিম্বা গ্রামের কৃষক মো: টিপু প্রাং জানান, আমি এবছর ৩০ বিঘা জমিতে ধান লাগিয়েছি। ইতিমধ্যেই ধান কাটা শুরু করেছি ফলন ভালই হচ্ছে। গত শনিবার-রবিবারের কালবৈশাখী ঝড় আর বৃষ্টিপাতে আমার প্রায় ২৮ বিঘা জমির জিরা জাতের ধান মাটিতে পড়ে গেছে। জমিগুলোতে ঢলের পানি জুমে যাওয়ায় চড়া মূল্য গুনতে হচ্ছে। ধান মাটিতে শুয়ে পড়ার কারনে ভাল ফলন পাবো কি না এই নিয়ে শংকায় আছি।
উপজেলা কৃষি আফিসার কৃষিবিদ এসএম গোলাম সারওয়ার জানান, শনিবারের বৃষ্টি আর ঝড়ে রক্তদহ বিল এলাকা ও উপজেলার মেইন রাস্তার দুই পাশের নিচু শ্রেণীর প্রায় ৪০ হেক্টর জমির ধান পানিতে তলে গেছে। কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকে মাঠ পর্যায়ের কৃষকদেরকে ঢুবে যাওয়া জমির ধান দ্রুত কাটার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।

শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন
  • 7
    Shares
x

Check Also

মন্ত্রী আমাকে ঘরে ডেকে জাপটে ধরে…

ক্রাইম প্রতিদিন ...