Home / সারাদেশ / নদী গর্ভে বিলিন হচ্ছে পঞ্চগড় ছিটমহলের একটি গ্রাম

নদী গর্ভে বিলিন হচ্ছে পঞ্চগড় ছিটমহলের একটি গ্রাম

ক্রাইম প্রতিদিন, মো: সাইদুজ্জামান রেজা, পঞ্চগড় : পঞ্চগড় জেলাধীন বোদা উপজেলার বড়শশী ইউনিয়নের সাবেক ৩৭ নং শালবাড়ি ছিটমহল নতুন বাংলার সরকার পাড়া গ্রামের নদীর পাড় এলাকার ৫০/৬০ টি পরিবারের ভিটে মাটি নদী গর্ভে বিলিন হওয়ার পথে। ছিটমহল বিলুপ্ত হওয়ার পর সরকারের বিশেষ নির্দেশনায় প্রতিটি বিলুপ্ত ছিলমহলে আশাতিত উন্নয়ন সাধিত হয়েছে স্কুল,কলেজ, মাদ্রাসা, রাস্তা-ঘাট সহ প্রায় প্রতিটি ক্ষেত্রে ব্যপক উন্নয়ন সাধন হয়েছে কিন্তু সরকারের আন্তরিক প্রচেষ্টার পরেও উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি বড়শশী ইউনিয়নের শালবাড়ি বিলুপ্ত ছিটমহলের নদীর পারে সরকার পাড়া গ্রামে। এ গ্রামে বাসিন্দারা সরকারের উন্নয়ন থেকে বঞ্চিত হচ্ছে এমনকি অনেকে শেষ সম্বল ভিটামাটিটুকু হারিয়ে নি:স্ব হয়ে পথে পথে ঘুরছে। প্রতি বছর বর্ষা মৌসুমে এসব এলাকায় মানুষদের চরম দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। গত দু’বছরে ১৭ টি বাড়ি নদী গর্ভে চলে গেছে, বিলুপ্ত শালবাড়ি ছিটমহল নতুন বাংলার জলিল, একাব্বর প্রতিবেদককে জানান, নদীর পাশের রাস্তাটি ভেঙ্গে এখন প্রতিবছরই করতোয়ার বুকে বিলিন হচ্ছে অনেকের ঘরবাড়ি সহ ফসলি জমি। এতে অনেক মানুষ নি:স্ব হয়ে অন্যত্র ঘর-বাড়ি সরিয়ে নেয়া হয়েছে। নদীর পাড় সরকার পাড়া এলাকার সাদ্দাম হোসেন বলেন, আমার শেষ সম্বল ভিটেবাড়ী নদীতে বিলিন হয়ে, এখন আমি ছেলে সন্তান নিয়ে অন্যের জমিতে বসবাস করি। এলাকাবাসীর দীর্ঘদিনের দাবী, বর্তমান উন্নয়নমূখী সরকার অবহেলিত ও পিছিয়ে পড়া এ ছিটমহল এলাকার মানুষের দুর্ভোগ লাঘবে দ্রুত করতোয়া নদীর তীর সংরক্ষনের জন্য বাধঁ নির্মান করবেন। ঐ এলাকার মানুষরা জরুরী ভিত্তিতে তাদের প্রাণের দাবী করতোয়া নদীর তীর সংরক্ষণ এর বাধঁ নির্মানের জন্য মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর নিকট জোড় দাবী জানিয়েছেন। বড়শশী ইউনিয়নের ২নং ওয়াডের ইউপি সদস্য চান মিয়া জানান, নদীর তীর সংরক্ষণ এর বিষয়ে আমরা জেলা প্রশাসকের বরাবরে আবেদন করেছি। কিন্তু এযাবত কোন খোঁজ নাই। বোদা উপজেলার বড়শশী ইউনিয়ন এর চেয়ারম্যান আফজাল হোসেন জানান,গত দু’বছরে ১৭ টি বাড়ি নদী গর্ভে চলে গেছে,বিষয়টি আমি জেলা প্রশাসক সহ মাননীয় সংসদ সদস্য পঞ্চগড়-২, এ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম সুজন মহোদয়কে মৌখিক ভাবে জানিয়েছি।

Print Friendly, PDF & Email

এই মুহূর্তে অন্যরা যা পড়ছে