সংবাদ শিরোনাম
Home / সারাদেশ / নড়াইলে ব্যাংক ডাকাতির ১বছর পর ছাত্র গ্রেফতার

নড়াইলে ব্যাংক ডাকাতির ১বছর পর ছাত্র গ্রেফতার

ক্রাইম প্রতিদিন, উজ্জ্বল রায়, নড়াইল : নড়াইলে ব্যাংক ডাকাতি মামলার এক বছর পর মার্কেটিং বিভাগের ১ম বর্ষের ছাত্র গ্রেফতার।নড়াইল জেলার সুযোগ্য পুলিশ সুপার জনাব মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন পিপিএম এর বলিষ্ঠ নেতৃত্বে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ২২/০১/২০১৭ তারিখে নড়াইল সদর থানাধীন মাইজপাড়া শাখা গ্রামীন ব্যাংকে নগদ টাকা, মোবাইল ফোন ও দুইটি মটর সাইকেল লুন্ঠনের ঘটনার সাথে জড়িত এক আসামিকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে নড়াইল সদর থানা পুলিশের চৌকশ টিমের সদস্যরা। গ্রেফতারকৃত আসামির নাম মোঃ ইয়াসিন (২১)। সে নড়াইল সদর উপজেলাধীন দেবীপুর এলাকার কুটি মিয়া ঢালীর পুত্র এবং ঢাকার মোহাম্মদপুরে অবস্থিত আলহাজ্ব মকবুল হোসেন ইউনিভার্সিটি এন্ড কলেজের মার্কেটিং বিভাগের ১ম বর্ষের ছাত্র। পরে সাংবাদিকবৃন্দদের প্রেস ব্রিফিং এর মাধ্যমে ঘটনার বিস্তারিত জানান নড়াইলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম পিপিএম। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সহকারি পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোঃ মেহেদী হাসান, নড়াইল সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন প্রমুখ। গণমাধ্যমকর্মীদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নড়াইল জেলা অনলাইন মিডিয়া ক্লাবের সভাপতি উজ্জ্বল রায় ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ হিমেল মোল্যসহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ। প্রেস ব্রিফিং এ জানা যায়, ২২/০১/২০১৭ ইং তারিখে নড়াইল সদর উপজেলাধীন মাইজপাড়া শাখা গ্রামীণ ব্যাংকে ঢুকে উক্ত ব্যাংকের স্টাফদের অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে নগদ টাকা, মোবাইল ফোন ও দুইটি মটর সাইকেল লুন্ঠন করে নিয়ে যায় একদল সশস্ত্র দুর্বৃত্ত। লুন্ঠিত একটি মোটরসাইকেল গোপালগঞ্জ জেলার কাশিয়ানী থানা থেকে পরিত্যক্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হলেও এ ঘটনায় পুলিশ কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি। এ ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে নড়াইল সদর থানায় একটি মামলা দায়ের হলে ঘটনা অনুসন্ধানে নেমে পড়ে নড়াইল সদর থানার চৌকশ পুলিশ অফিসারেরা। এরই ধারাবাহিকতায় ঘটনার সাথে জড়িত মোঃ ইয়াসিন তার নিজ এলাকা দেবীপুরে অবস্থান করছে মর্মে নড়াইল জেলার সুযোগ্য পুলিশ সুপার জনাব মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন পিপিএম এর নিকট একটি গোপন সংবাদ আসে। তিনি সরকারি কাজে নড়াইলের বাইরে থাকায় ঘটনাটি খতিয়ে দেখার জন্য নড়াইল সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেনকে নির্দেশ দিলে তিনি সঙ্গীয় ফোর্স এএসআই আনিছ,এএসআই রেজাউল ও এএসআই মনিরকে ও মনিরকে সঙ্গে নিয়ে ওই গ্রামে অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত ইয়াসিনকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হন। প্রেস ব্রিফিং এ আরো জানা গেছে, ইয়াসিনকে জিজ্ঞাসাবাদ করে অনেক চাঞ্চল্যকর তথ্য পাওয়া গেছে এবং ঘটনার সাথে জড়িত বাকিদেরও পরিচয় উদঘাটন করা সম্ভব হয়েছে। এ ব্যাপারে নড়াইল জেলার সুযোগ্য পুলিশ সুপার জনাব মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন পিপিএম এর সাথে মুঠোফোনে আলাপ হলে তিনি নড়াইল জেলা অনলাইন মিডিয়া ক্লাবের সভাপতি উজ্জ্বল রায় ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ হিমেল মোল্যাকে জানান, আমি সরকারি কাজে বাইরে থাকায় উক্ত অভিযানে প্রত্যক্ষভাবে অংশগ্রহণ করতে পারি নি। তবে আমার দেওয়া নির্দেশনা অনুযায়ী নড়াইল সদর থানার কর্মকর্তারা আসামিকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে। গ্রেফতারকৃতের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের প্রস্তুতি চলছে বলেও তিনি জানিয়েছেন।

Print Friendly, PDF & Email

এই মুহূর্তে অন্যরা যা পড়ছে