সংবাদ শিরোনাম
Home / সারাদেশ / পঞ্চগড়ে জেলা যুবদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের কমিটি প্রত্যাখান

পঞ্চগড়ে জেলা যুবদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের কমিটি প্রত্যাখান

ক্রাইম প্রতিদিন, সাইদুজ্জামান রেজা, পঞ্চগড় : পঞ্চগড়ে অবৈধ ভুয়া কমিটি গঠন নিয়ে জেলা যুবদল ও স্বেচ্ছাসেবক দল যৌথভাবে এক সংবাদ সন্মেলন করেছে।

রোববার (২৪জুন) দুপুরে জেলা বিএনপি কার্যালয়ে এই সংবাদ সন্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদ সন্মেলনের মাধ্যমে দলীয় নেতা-কর্মীরা জেলা যুবদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের অবৈধ ভুয়া কমিটি প্রত্যাখান করে। সংবাদ সন্মেলনে নেতা-কর্মীরা বলেন, জাতীয় সংসদের সাবেক স্পীকার ব্যারিষ্টার মুহাম্মদ জমির উদ্দিন সরকার পঞ্চগড় বিএনপিকে ধ্বংস করার জন্য নীল নকশায় মেতে উঠেছেন তার তীব্র প্রতিবাদ জানায়। বিএনপিকে ধ্বংস করতে জমির উদ্দীন সরকারের নির্দেশে সকল অবৈধ অগণতান্ত্রিক কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে সব সময় রুখে দাঁড়িয়েছে পঞ্চগড় বিএনপি। বর্তমানেও রুখে দাঁড়াবে বলে হুশিয়ারী দেন নেতা-কর্মীরা। নেতা-কর্মীরা অভিযোগ করে বলেন, বিগত দিনে এ্যাড: মীর্জা নাজমুল ইসলাম কাজলকে আয়বায়ক করে জেলা যুবদল ও তাজমিনুল ইসলাম তানুকে আহবায়ক এবং মাহামুদুর রহমান মাহবুবুকে যুগ্ম আহবায়ক করে স্বেচ্ছাসেবক দলের একটি সন্মেলন প্রস্তুত কমিটি গঠন করা হয়। এরপরে তার কোন নামগন্ধ নেই পুনাঙ্গ কমিটি করার। অতিবাহিত হয়েছে ৭/৮বছর।

দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া যখন জালেম সরকারের রোসানলে কারাগারে বন্দি তখন তার প্রতিবাদ না করে বরং সেই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে কেন্দ্রীয় ছাত্রদল,যুবদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতৃবৃন্দ সারাদেশে অবৈধ কমিটি গঠন বানিজ্যে মাতোয়ারা। কয়েকদিনের ব্যবধানে ঢাকায় এসি রুমে বসে জানা নেই, শোনা নেই সন্মেলন নেই, মিটিং নেই ৪০/৪৫টি জেলা শহরে যুবদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের কমিটি অনুমোদন দেন। তারই ধারাবাহিকতায় পঞ্চগড়েও নামহীন, গোত্রহীন কিছু উদ্ভট, ছিনতাইয়ের সাথে জড়িত এবং মাদকাসক্তদের যুবদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের কমিটিতে মুল পদে রাখা হয়েছে। আমরা তা প্রত্যাখান করছি। নেতা-কর্মীরা আরও বলেন, ব্যারিষ্টার জমির উদ্দীন সরকার তার অযোগ্য, অকেজো সন্তানকে পঞ্চগড় বিএনপিতে দাঁড় করানোর জন্যই এই নীল নকশা। আর সে কারনেই কেন্দ্রীয় অঙ্গ সংগঠনের নেতাদের বাড়িতে ডেকে নিয়ে এসে তালিকা ধরিয়ে দিয়ে এক প্রকার চাপ দিয়ে প্রতিটা অঙ্গ সংগঠনের নেশাগ্রস্থ, ছিনতাইকারী, উদ্ভট ছেলেদের কমিটিতে মুল দায়িত্বে দিয়েছে জমির উদ্দীন সরকার। এতে করে সবসময় বঞ্চিত হয়েছে দলের যোগ্য ছাত্রনেতা-কর্মী, যুবনেতা-কর্মী ও বিএনপির লড়াকু সংগ্রামী নেতৃবৃন্দ।

শুধুমাত্র ব্যক্তিগত স্বার্থ রক্ষার জন্য কখনো এসব ছেলেদের কখনো তার কর্মচারীসহ নিজের আস্থাভাজন লোকদের মুল দায়িত্বে রেখে বহুদিন ধরে পঞ্চগড় বিএনপিতে ইচ্ছে করে বিভাজন ও সংর্ঘষ সৃষ্টি করে রেখেছে জমির উদ্দিন সরকার। বর্তমানে তার মদতপুষ্ট নেতারা বলে বেড়াচ্ছেন পঞ্চগড় বিএনপি খালেদা জিয়া কিংবা তারেক রহমান নয়, পঞ্চগড় বিএনপি পরিচালিত হবে ব্যারিষ্টার জমির উদ্দিন সরকারের নির্দেশেই। সর্বশেষে নেতা-কর্মীরা জানান, আমরা শহীদ জিয়ার আদর্শে খালেদা জিয়ার নির্দেশনায় এবং তারেক রহমানের অনুপ্রেরনায় একটি গনতান্ত্রিক বৈধ, সকলের অংশগ্রহণমুলক প্লাটফর্মে বিএনপিকে দেখতে চাই।

জেলায় কর্মরত প্রিন্ট ও ইলেকট্রোনিক মিডিয়ার সংবাদ কর্মীদের উপস্থিতিতে সংবাদ সম্মেলনে জেলা বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ও পৌর বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি মেহের আলী,জেলা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক জাহিরুল ইসলাম কাচ্চু, পৌর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মামুন রনিক, সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক ফেরদৌস ওয়াহিদ রাসেল, সাবেক ছাত্রনেতা তবারক হোসেন বিল্টু, ছাত্রনেতা মহিদুল ইসলাম দীপু সহ জেলা বিএনপি, জেলা যুবদল, ছাত্রদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

Print Friendly, PDF & Email

এই মুহূর্তে অন্যরা যা পড়ছে