Home / এক্সক্লুসিভ / বিএনপিকে ঠেকাতে আ’লীগের নতুন কৌশল

বিএনপিকে ঠেকাতে আ’লীগের নতুন কৌশল

ক্রাইম প্রতিদিন, ডেস্ক : জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে দেশের পাঁচ সিটিতে ভোটযুদ্ধে জিতে নিজেদের জনপ্রিয়তা প্রমাণ করতে চায় আওয়ামী লীগ। এজন্য প্রতিটি নির্বাচনে জয় ও নিরপেক্ষতা দুটোই চায় ক্ষমতাসীন দলটি। একই সঙ্গে সিটি নির্বাচনে ব্যস্ত রেখে বিএনপিকে আন্দোলনের সুযোগ দিতে চায় না সরকারি দল।

সূত্র জানায়, আগামী মার্চ-এপ্রিলে পাঁচ সিটি নির্বাচনের দিন গণনা শুরু হচ্ছে। ঢাকা উত্তরের উপনির্বাচন ও দুই সিটির ৩৬ ওয়ার্ডের নির্বাচন আটকে যাওয়ার পর সময়মতো পাঁচ সিটি নির্বাচন অনুষ্ঠানে পূর্ণ প্রস্তুতি নিচ্ছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

সংসদ নির্বাচনের আগে সিটির ভোটে বিএনপিসহ সব দলকে রাখতে চায় সাংবিধানিক এই প্রতিষ্ঠানটি। বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া জেলে যাওয়ার পর সংসদ নির্বাচনে তার অংশগ্রহণের যোগ্যতা-অযোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। এ ক্ষেত্রে তারা আসন্ন পাঁচ সিটি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে কি না তা পর্যবেক্ষণ করছে কমিশন।

সম্প্রতি প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা বলেছেন, বিএনপি ছাড়া অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন হবে না। অবশ্যই রাজনৈতিক অঙ্গনে বিএনপির একটি গুরুত্বপূর্ণ অবস্থান আছে। আমরা সব সময় বলছি নিরপেক্ষ থাকব। নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী সব দল একই সুযোগ-সুবিধা পাবে। আমরা তো প্রত্যাশা করব সব দল নির্বাচনে আসুক।

নির্বাচন বিশ্লেষকরা বলছেন, শুধু মুখেই সব দলকে ভোটে চাইলে হবে না, কার্যকর উদ্যোগও নিতে হবে। নির্বাচনে সবার জন্য কীভাবে সমান সুযোগ থাকবে তা পরিষ্কার করতে হবে।

এদিকে সিটি নির্বাচন সামনে রেখে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা দল বেঁধে ভোটারের কাছে যাচ্ছেন। ইতিমধ্যে সিলেট, বরিশাল সিটিতে নৌকা মার্কায় ভোট চেয়েছেন দলীয় সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি ২২ ফেব্রুয়ারি রাজশাহী ও ৩ মার্চ যাবেন খুলনায়।

সূত্রমতে, বিএনপি নেত্রীর কারাদণ্ড হওয়ায় বিএনপি এখন রাজনৈতিক ও নৈতিকভাবে দুর্বল হয়ে পড়েছে বলে মনে করেন আওয়ামী লীগ নেতারা। তাদের মতে, এ মুহূর্তে খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য বড় ধরনের কোনো আন্দোলনও গড়ে তোলার শক্তি নেই দলটির। এ ছাড়া সাবেক প্রধানমন্ত্রীর সাজা নিয়ে সরকারের ওপর আন্তর্জাতিকভাবেও কোনো চাপ সৃষ্টি করতে পারেনি বিএনপি।

খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়টি দীর্ঘ সময় লাগতে পারে বলে মনে করেন ক্ষমতাসীনরা। তাই বিএনপির আন্দোলন নিয়ে ভাবছে না সরকার। এসব বিবেচনায় আওয়ামী লীগের দৃষ্টি এখন পাঁচ সিটি করপোরেশন নির্বাচনের দিকে। আগামী মার্চে সিটি নির্বাচন শুরু করা হলে বিএনপিকে নির্বাচনে ব্যস্ত রাখা সম্ভব হবে। সে অনুযায়ী নির্বাচনী ছক তৈরি করছেন ক্ষমতাসীন দলের নীতিনির্ধারকরা। সিটি নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীকে বিজয়ী করতে ইতিমধ্যে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্দেশনা দিয়েছেন। একই সঙ্গে সিলেট ও রাজশাহীতে দলীয় প্রার্থীকেগ্রিন সিগন্যাল দেওয়া হয়েছে।

সূত্রমতে, আগামী মার্চে সিটি করপোরেশন নির্বাচনের মধ্য দিয়েই কার্যত শুরু হয়ে যাবে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের উত্তাপ।

নির্বাচন কমিশন সূত্রমতে, গাজীপুরে ৮ মার্চ থেকে ৪ সেপ্টেম্বর, সিলেটে ১৩ মার্চ থেকে ৮ সেপ্টেম্বর, খুলনায় ৩০ মার্চ থেকে ২৫ সেপ্টেম্বর, রাজশাহীতে ৯ এপ্রিল থেকে ৫ অক্টোবর, বরিশালে ২৭ এপ্রিল থেকে ২৩ অক্টোবরের মধ্যে নির্বাচন করতে হবে।

দলীয় সূত্রমতে, সিটি করপোরেশন নির্বাচনের অভিজ্ঞতা থেকে আগামী সংসদ নির্বাচনের কৌশল প্রণয়ন করবে আওয়ামী লীগ। পাঁচ সিটির ভোটে জানা যাবে আওয়ামী লীগের বর্তমান সাংগঠনিক অবস্থা, প্রতিপক্ষের শক্তি ও কৌশল, মাঠপর্যায়ে প্রশাসনের ভূমিকা বা দক্ষতা।

সে অনুযায়ী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের কৌশল ঠিক করা হবে। তবে আসন্ন সিটি নির্বাচনগুলোয় দলীয় মেয়র প্রার্থীদের জেতা যেমন জরুরি তেমনি নিরপেক্ষতা বজায় রাখাও অপরিহার্য। একদিকে সরকারের ভাবমূর্তি রক্ষা, অন্যদিকে বিশ্বাসযোগ্যতা অটুট রাখা। দলীয় প্রার্থীর বিজয় নিশ্চিত করতে আগেই রাজশাহী ও সিলেট সিটিতে দলীয় মেয়র প্রার্থীকে মাঠে কাজ করার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

অন্যদিকে ইসির কর্মকর্তারা জানান, মে থেকে অক্টোবরের মধ্যে জাতীয় নির্বাচনের অগ্রাধিকারমূলক কাজের চাপ থাকবে; নভেম্বর-ডিসেম্বরে তফসিলের আয়োজন চলবে। সে ক্ষেত্রে জুনের মধ্যে মেয়াদোত্তীর্ণ হওয়া সাপেক্ষে সিটি নির্বাচন করার জন্য প্রয়োজনীয় প্রস্তুতির কাজ চলছে।

এর আগে ২০১৩ সালের জুনে এক দিনে রাজশাহী, বরিশাল, খুলনা, সিলেট সিটি করপোরেশন এবং জুলাইয়ে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ভোট হয়েছে। সিটি করপোরেশনে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের কার্যকাল দায়িত্ব নেওয়ার পর প্রথম সভা থেকে পরবর্তী পাঁচ বছর। মেয়াদ শেষ হওয়ার আগের ছয় মাসের মধ্যে ভোট করার আইনি বাধ্যবাধকতা রয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email

এই মুহূর্তে অন্যরা যা পড়ছে

শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন
  • 42
    Shares
x

Check Also

নির্বাচন কমিশনকে বিএনপির ‘ধন্যবাদ’

ক্রাইম প্রতিদিন : বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বরকত ...