Home / রাজনীতি / বিএনপির শান্তিপূর্ণ সভা-সমাবেশের অনুমতি দিতে ভয় পায় সরকার : রিজভী

বিএনপির শান্তিপূর্ণ সভা-সমাবেশের অনুমতি দিতে ভয় পায় সরকার : রিজভী

ক্রাইম প্রতিদিন : সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বিএনপি জনসভা করতে চাইলে অনুমতি দেয়া হচ্ছে না অভিযোগ করে বিএনপির জ্যৈষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, সোহরাওয়ার্দী উদ্যান মনে হয় মহাজোটের পৈতৃক সম্পত্তি। তাই এরশাদের জাতীয় পার্টি ও রাশেদ খান মেমনের ওয়ার্কার্স পার্টি অনুমতি পেলেও বিএনপি পায় না।

তিনি বলেন, জনসমাগম দেখলে আওয়ামী লীগ আতঙ্কিত হয়ে উঠে। আর সেই জন্য বিএনপি শান্তিপূর্ণ সভা সমাবেশ করার অনুমতি দিতেও ভয় পায়। গতকাল খুলনায়ও জনসভা করতে অনেক গড়িমসি করেছে। পরে জনতার স্রোত দেখে বাধ্য হয়ে দলীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশের অনুমতি দিয়েছে।

রবিবার বিকেলে দলের নয়া পল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

রিজভী বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে আগামীকালের জনসভার জন্য আমরা পুরোপুরি প্রস্তুত আছি। আজ রাতের মধ্যে যখনই অনুমতি দেয়া হয় আমরা সমাবেশ সফল করতে পারবো।

রিজভী আরও বলেন, এখনও আমরা অপেক্ষায় আছি। আশা করছি প্রশাসন অনুমতি দিবে। কারণ জনসভার অনুমতি না দেয়ার কোনো কারণ দেখছি না। কারণ কালও খুলনায় জনসভা হয়েছে সেখানেও শান্তিপূর্ণ সমাবেশ হয়েছে। আমরা চাই সরকারের মন শুভ বুদ্ধির উদয় হোক।

তিনি বলেন, জনসভার জন্য বিএনপি সব প্রস্তুতি হাতে নিয়েছে কিন্তু এখনও পুলিশের পক্ষ থেকে কোনো কিছু জানানো হয়নি। যখনই অনুমতি দেয়া হয় আমরা সমাবেশ সফল করবো। জনগণ স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশ নিবে।

দেশে গণতন্ত্রের সঙ্কট নেই আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদকের সমালোচনা করে তিনি বলেন, তিনি কথাটা ঘুরিয়ে বলেছেন দেশে আওয়ামী গণতন্ত্রের সঙ্কট নেই। কিন্তু সত্যিকারের গণতন্ত্র বেওয়ারিশ লাশের মত পড়ে আছে।

বিএনপির সিনিয়র এ নেতা বলেন, বিএনপি নয়, আওয়ামী লীগ ক্ষমতা হারানোর ভয়ে আতঙ্কিত। তাই বার বার বিদেশীদের কাছে ধর্ণা দিচ্ছে। কারণ তাদের ভোটারবিহীন সরকারকে একটি দেশ ছাড়া কেউ তাদের স্বীকৃতি দেয়নি। তাই যেখানে সচিব পর্যায়ের লোক গেলে হয় সেখানে প্রধানমন্ত্রী নিজেই চলে যান যাতে তাদের সমর্থন আদায় করতে পারেন।

জনগণের মনের ভাব বুঝতে পেরে সরকার দিশেহারা। বুঝতে পেরেছে ৫ জানুয়ারি মার্কা নির্বাচন আর করতে পারবে না। তাই আবারও ভোটারবিহীন একদলীয় নির্বাচন কিভাবে করা যায় তা নিয়ে ব্যস্ত মরিয়া হয়ে উঠেছে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুস সালাম, আবুল খায়ের ভূঁইয়া, বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ, নির্বাহী কমিটির সদস্য আমিনুল ইসলাম প্রমুখ।

আরও পড়ুন.......

শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন
  • 3
    Shares