সংবাদ শিরোনাম
Home / এক্সক্লুসিভ / রায় নিয়ে ব্যস্ত খালেদা: প্রচারণায় শেখ হাসিনা

রায় নিয়ে ব্যস্ত খালেদা: প্রচারণায় শেখ হাসিনা

ক্রাইম প্রতিদিন, ডেস্ক : আর মাত্র কয়েক মাস পরই অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। নির্বাচনে আগে দুর্নীতির মামলায় রায় নিয়ে আদালত পাড়ায় ঘুরাঘুরি করছেন রাজনৈতিক মাঠের বিরোধী দল হিসেবে পরিচিত বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। অপর দিকে আজ থেকেই আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া দুর্নীতির মামলার রায় নিয়ে দলের কেন্দ্রীয় থেকে শুরু করে সাংগঠনিক ভাবেও দফায় দফায় মিটিং আর সেমিনার নিয়ে ব্যস্তময় সময় পার করছেন। রায় নিয়ে তৈরী করছেন বিভিন্ন পরিকল্পনা। আকঁছেন সাংগঠনিক ছক। বৈঠক করেছন ২০ দলের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে। বৈঠকে ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় বেগম খালেদা জিয়ার রায় নেতিবাচক হলে দুই কৌশলে পরিস্থিতি মোকাবিলা করার পক্ষে মত দিয়েছেন ২০ দলীয় জোটের শীর্ষ নেতারা। এছাড়া দুঃসময়ে খালেদার পাশে থাকার আশ্বাসও দিয়েছেন তারা।

বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, রায়ে খালেদা জিয়ার সাজা হলে কঠোর কোনো কর্মসূচিতে না গেলেও আইনি লড়াই করার বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। পাশাপাশি আলোচনায় উঠে এসেছে রাজনৈতিক লড়াইয়ের কথাও। তবে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়ার দায়িত্ব দেয়া হয়েছে জোট প্রধান খালেদা জিয়াকে।

রায়কে ঘিরে ঢাকার মধ্যে একটি জনসমুদ্রে শ্রোত তৈরি করার পরিকল্পনা করছেন বিএনপি। কয়েক লাখ মানুষের জড়ো হওয়ার আশংকা করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। কয়েক লাখ মানুষ এক সাথে জড়ো হলে অপ্রত্যাশিত কোনো ঘটনার আশংকা করছেন তারা।

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় হাজিরা দিতে আজ আদালতে গেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। এর আগে গত বৃহস্পতিবার পুরান ঢাকার বকশীবাজার আলিয়া মাদ্রাসায় স্থাপিত বিশেষ আদালত-৫ এর বিচারক ড. আখতারুজ্জামান জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ৮ ফেব্রুয়ারি রায় ঘোষণার দিন ধার্য করেছেন।

অপর দিকে আজ ৩০ জানুয়ারি থেকেই একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রচারণা শুরু করতে যাচ্ছেন আ্ওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি পীরের মাজার জিয়ারতের মধ্যদিয়ে সিলেট থেকে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করবেন।

এসময় প্রধানমন্ত্রী সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন। পরে বিকেল ৩টায় সিলেট সরকারি আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় যোগদান করবেন তিনি।২০১৪ সালে টানা দ্বিতীয় মেয়াদে সরকার গঠনের পর সিলেটে প্রধানমন্ত্রীর আনুষ্ঠানিকভাবে এটি তৃতীয় সফর। জনসভায় সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকাণ্ড তুলে ধরার পাশাপাশি একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে আওয়ামী লীগ সভাপতি নেতাকর্মীদের দিক-নির্দেশনা দেবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী ২০টি প্রকল্পের উদ্বোধন ও ১৮টি প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন।

আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে গতিশীল ও নির্বাচনমুখী করার প্রত্যয়ে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দের দেশব্যাপী সাংগঠনিক সফর শুরু করেছেন। সফরসূচির অংশ হিসেবে গত শুক্রবার (২৬ জানুয়ারি) সকাল ১০টায় মানিকগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন কর্মসূচি এবং কর্মীসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি।

তাছাড়া বিএনপির নিবার্চন কমিশনের কাছে তাদের গঠনতন্ত্র জমা দিয়েন। সেখানে তাদের গঠনতন্ত্রের সাত ধারা বিলিপ্ত করেছেন বলে অভিযোগ তুলেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি একটি অনুষ্ঠানে বলেন, রাতের আধারে কলমের খোঁছায় ৭ ধারা বিলুপ্ত হয়ে গেছে। আদালতের রায়ে যদি সাজা হয় তাহলে বেগম জিয়া নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন না বলেই ৭ ধারা বাদ দিয়েছেন। জাতীয় নির্বাচনের আগে পাঁচ সিটি সিলেট, রাজধানী, খুলনা, বরিশাল এবং গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচন হবে। তফসিল ঘোষণার আগে শেখ হাসিনার এসব শহরে যাওয়ার কথাও আছে।

রাজনৈতিক বিশ্লেষক আরও বলেন, ‘কী ঘটতে যাচ্ছে কেউ কিছু বুঝতে পারছেন না। সবাই অত্যন্ত গুরুতর আশঙ্কা নিয়ে আছে- কোনো বিশৃঙ্খলা ও আন্দোলন হবে কি না? অর্থনৈতিক বিপর্যয় নেমে আসবে কি না? অবস্থাটা ঘোলাটে। সমস্যা সমাধানে দুই দলের ভূমিকা প্রয়োজন।’

আপনার মন্তব্য লিখুন
শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন
  • 51
    Shares