সংবাদ শিরোনাম
Home / জাতীয় / সদস্য সচিবের পদ থেকে তাপসের পদত্যাগপত্র জমা

সদস্য সচিবের পদ থেকে তাপসের পদত্যাগপত্র জমা

ক্রাইম প্রতিদিন, ডেস্ক : বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের সদস্য সচিবের পদ থেকে অব্যাহতির জন্য পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন ব্যারিস্টার ফজলে নূর তাপস।

শনিবার আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ও আইনজীবী পরিষদের আহ্বায়ক ইউসুফ হোসেন হুমায়ুনের কাছে পৃথকভাবে তিনি এ পদত্যাগপত্র জমা দেন। তবে তার এ পদত্যাগপত্র গৃহিত হয়নি বলে সংগঠনের পক্ষ জানানো হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সুত্র জানায়, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি নির্বাচনে দলের পরাজয়ের দায় কাঁধে নিয়ে তাপস পদত্যাগ করেছেন। ফজলে নূর তাপসের পদত্যাগপত্র জমার খবরে রোববার বিকালে তার সুপ্রিম কোর্টস্থ তার চেম্বারে বৈঠকের জন্য যান দলটির আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন, অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম, আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট শ. ম. রেজাউল করিম প্রমুখ। তখন সুপ্রিম কোর্টের অসংখ্য তরুণ আইনজীবীসহ সকলেই তাকে পদত্যাগপত্র প্রত্যাহারের অনুরোধ করেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে পরিষদের আহ্বায়ক ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন বলেন, তিনি একটা পদত্যাগপত্র আমাকে দিয়েছেন। আমরা বিষয়টি নিয়ে বসেছিলাম। প্রায় দুই তিনশ’ আইনজীবী ছিলেন। দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে আমাদের কথা হয়েছে। তিনি বলেছেন, পদত্যাগপত্র গৃহিত হয় নাই।

অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম যুগান্তরকে বলেন, ব্যারিস্টার তাপসের পদত্যাগের বিষয় নিয়ে আমরা কয়েকজন আইনজীবী আলোচনায় বসেছিলাম। সেখানে আরও অনেক আইনজীবী ছিলেন। তারা সবাই তাকে পদত্যাগ না করার অনুরোধ জানান। তবে তার পদত্যাগপত্র গৃহীত হয়নি।

তিনি বলেন, ব্যারিস্টার তাপসের নেতৃত্বে আইনজীবীদের মধ্যে জাগরণ সৃষ্টি হয়েছে। এটা কারো কারো সহ্য হয়নি।

জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট শ. ম. রেজাউল করিম বলেন, ব্যারিস্টার তাপস পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছিলেন। তবে সেটা গৃহিত হয়নি। বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের আহ্বায়ক ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন এবং সদস্য সচিব ব্যারিস্টার ফজলে নুর তাপসের নেতৃত্বে সোমবার ২৬ মার্চের অনুষ্ঠানে আমরা যাবো আশা করছি। রোববার দুপুরে সুপ্রিম কোর্টে ফজলে নূর তাপসের সঙ্গে দেখা করেন আইনজীবী সমিতি নির্বাচনে সাদা প্যানেলের (সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদ) পরাজিত সম্পাদক প্রার্থী আইনজীবী শেখ মোহাম্মদ মোরশেদের নেতৃত্বে শতাধিক তরুণ আইনজীবী।

মোরশেদ তাপসকে বলেন, আপনি পদত্যাগ করবেন না। আপনি আমাদের অভিভাবক। পদত্যাগপত্র প্রত্যাহার করুন। আমরা আপনার নেতৃত্ব থেকে বঞ্চিত হতে চাই না। আপনার নেতৃত্বে আমরা প্রয়োজনে শূন্য থেকে কাজ শুরু করব।

এসময় ব্যারিস্টার ফজলে নূর তাপস নিরব ছিলেন। আইনজীবীরা পদত্যাগপত্র গ্রহণ না করার জন্য তাপসের পক্ষে এ সময় বিভিন্ন শ্লোগান দেন।

উল্লেখ্য, গত ২১ ও ২২ মার্চ সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির ২০১৮-১৯ সেশন নির্বাচনে বিএনপিপন্থী আইনজীবীদের সংগঠন জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্য প্যানেলের (নীল প্যানেল) কাছে ক্ষমতাসীনদের প্যানেল সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদ পরাজিত হয়। সমিতির ১৪টি পদের মধ্যে সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকসহ দশটি পদে কর্তৃত্ব ধরে রাখতে সক্ষম হন বিএনপি-জামায়াত সমর্থক আইনজীবীরা। সরকার সমর্থক আইনজীবীরা জয়ী হন ৪টি পদে। গত নির্বাচনেও সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকসহ ৮টি পদে বিএনপি-জামায়াতপন্থী আইনজীবীরা জয়ী হয়েছিলেন। এবারের নির্বাচনের আগে সুপ্রিম কোর্টে সরকার সমর্থক আইনজীবীদের দুই সংগঠন- আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ এবং বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদকে একত্রিত করে বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ গঠন করা হয়। ঐক্যবদ্ধ এই সংগঠনের সদস্য সচিব করা হয় ফজলে নূর তাপসকে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে আইনজীবীদের অনেকেই জানান, নির্বাচনকে সামনে রেখে এক হলেও বিভিন্ন বিষয় নিয়ে দুই সংগঠনের কয়েকজন নেতার মধ্যে দ্বন্দ্ব ও অসহযোগিতা ছিল, যার কারণে হার হয়েছে। এই বিষয়টি নিয়ে ক্ষোভ থেকেই ফজলে নূর তাপস পদত্যাগ করেছেন।

Print Friendly, PDF & Email