Home / সাহিত্য / সৃজনশীল চেতনা ও রূপরেখার কারিগর কথাসাহিত্যিক মোশতাক আহমেদ

সৃজনশীল চেতনা ও রূপরেখার কারিগর কথাসাহিত্যিক মোশতাক আহমেদ

ক্রাইম প্রতিদিন : বাংলা ভাষার অন্যতম কথাসাহিত্যিক মোশতাক আহমেদ। তার লেখার গভীর থেকে ওঠে আসা সৃজনশীল চেতনার রূপরেখা নতুনদের হাতছানি দেয় আলোর পথে।

সাহিত্য নিজ প্রয়োজনে হয়ে ওঠে অসীম ও সমৃদ্ধ। মানুষকে সময় ও চেতনার রূপরেখা ঠিক করে দেয় সাহিত্য। শৈশব থেকেই মোশতাক আহমেদ প্রতিশ্রুতিশীল লেখক। মানুষের সফল রূপান্তর আর যান্ত্রিক সভ্যতার বিচিত্র বিবর্তনকে অগ্রাহ্য করে তারুণ্যের লেখক মোশতাক আহমেদ মেধা বিকাশে পরিচ্ছন্ন ভূমিকা পালন করছেন।

শত ব্যস্ততার মাঝে জীবনের সময়গুলোকে গভীর অনুভবের সঙ্গী করে নিয়েছেন মোশতাক আহমেদ। তিনি ১৯৭৫ সালের ৩০ ডিসেম্বর ফরিদপুর জেলার ভাঙ্গা থানাধীন সড়ইবাড়ী গ্রামে এক মুসলিম সম্ভ্রান্ত পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। পাঠক, শুভানুধ্যায়ীদের ভালোবাসা, চিন্তাচেতনায় নিজের লেখনীতে সমৃদ্ধি এনেছেন মোশতাক আহমেদ। মানবিক মূল্যবোধের গভীরে অনুপ্রেরণার কথাসাহিত্যিক মোশতাক আহমেদের লেখার ভাষা চিত্রকল্পময়। মোশতাক আহমেদ ১৯৯২ সালে খুলনা বিএল কলেজ থেকে সম্মিলিত মেধা তালিকায় ১৩তম স্থান অর্জন করেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনার্স ও মাস্টার্স সম্পন্ন করার পাশাপাশি ইংল্যান্ডের লেস্টার ইউনিভার্সিটি থেকে মাস্টার্স ডিগ্রি লাভ করেন।

নিজের যথার্থ পরিচয় দেয়ার সক্ষমতা রয়েছে শিক্ষাবিদ-গবেষক-সাহিত্যিক-লেখক মোশতাক আহমেদের। চিন্তাধারার নানাবিধ জটিলতাকে তিনি উন্মোচন করেন গভীর মমতায়। শিল্প, বাস্তবতাবোধ, চরিত্র, পরিবেশ, প্রতিবেশ বিষয় ও বক্তব্যের সঙ্গে মোশতাক আহমেদ তার ভাষার শরীরে নিজস্বতা আরোপ করতে সফল হয়েছেন। তার প্রকাশিত উল্লেখযোগ্য বইয়ের মধ্যে মুক্তিযোদ্ধা রতন, জোসনা রাতের জোনাকি, জকি, নিহির ভালোবাসা, অভিশপ্ত আত্মা, নক্ষত্রের রাজারবাগ, বসন্ত, বর্ষার দিগন্তে, জমিদারের গুপ্তধন ও মন ভাঙা পরী। আমাদের মাঝে শৈল্পিক কর্মের মাধ্যমে অনন্তকাল বেঁচে থাকবেন মোশতাক আহমেদ- এটাই আলোকিত বন্ধু ফোরামের প্রত্যাশা।

এই মুহূর্তে অন্যরা যা পড়ছে

শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন
  • 1.1K
    Shares
x

Check Also

আজ শহীদ জননীর প্রয়াণ দিবস

ক্রাইম প্রতিদিন : জাহানারা ইমাম একজন লেখিকা, ...