সংবাদ শিরোনাম
Home / ক্রাইম প্রতিদিন / মাদক বিরোধী অভিযানেও ভাটা পড়েনি হাতকাটা মামুনের মাদক সাম্রাজ্যে!

মাদক বিরোধী অভিযানেও ভাটা পড়েনি হাতকাটা মামুনের মাদক সাম্রাজ্যে!

ক্রাইম প্রতিদিন, বরিশাল : সারাদেশে সরকারের মাদক বিরোধী অভিযানেও ভাটা পড়েনি বরিশাল বাকেরগঞ্জের শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী দুর্ধর্ষ খুনি সন্ত্রাসী হাতকাটা মামুনের মাদক সাম্রাজ্য।

এই মাদক ব্যবসায়ী শুধু বরিশালের দক্ষিণ জনপদের শুধু মাদক বাণিজ্যের নিয়ন্ত্রকই নন, খুন, শিশু ধর্ষনের মতো ভয়ংকর অপরাধের ১৬টি চাঞ্চল্যকর মামলারও আসামী। সে বাকেরগঞ্জ উপজেলার ফরিদপুর ইউনিয়নের ইছাপুর গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ সদস্য আব্দুল মালেকের ছেলে। যুবলীগের বহিস্কৃত সন্ত্রাসী জহিরুল ইসলাম মামুন ওরফে হাতকাটা মামুন স্থানীয় প্রভাবশালী রাজনৈতি নেতা ও প্রশাসনের কতিপয় অসাধু সদস্যদের সহযোগীতায় দীর্ঘদিন যাবত নিরাপদে মাদক ব্যবসা চালিয়ে আসছে এমন অভিযোগ এলাকাবাসীর। জানা গেছে, বাকেরগঞ্জ উপজেলা সদর থেকে প্রায় ৪০কিলোমিটার দূরে ভোলা জেলার সীমান্তবর্তী এলাকার ফরিদপুর এলাকার সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা অত্যন্ত নাজুক।

ফরিদপুর ইউনিয়নটি চারদিক ঘেরা নদীর কারনে কখনই পুলিশি ঝামেলা পোহাতে হয় না মাদক ব্যবসায়ী মামুন ও তার সহযোগীদের। নদী বিচ্ছিন্ন এলাকা ও আইনশৃংখলা বাহিনীর ঝামেলা না থাকায় নিরাপদ আস্তানা বানিয়ে দীর্ঘদিন যাবত নির্ভিগ্নে মাদক ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে মামুন বাহিনী। স্থানীয় একাধিক ব্যক্তি জানান, বাকেরগঞ্জের ফরিদপুর, বাউফল ও তার আশপাশের এলাকায় দীর্ঘদিন যাবত মাদক ব্যবসা চালাচ্ছে এলাকার কুখ্যাত সন্ত্রাসী হাতকাটা মামুন। সে তার প্রধান সহযোগী একই এলাকার সয়নদ্দিন গাজীর ছেলে রাজধানীর পুরান ঢাকার পুরনো মাদক ব্যবসায়ী খবির গাজীর মাধ্যমে ঢাকা ও চট্রগ্রাম থেকে ইয়াবা ও ফেনসিডিল সংগ্রহ করে তা বীরদর্পে বিক্রি করে।

এলাকার আরো একাধিক সহযোগী রয়েছে যাদের মাধ্যমে হাতকাটা মামুন মাদক বিক্রি করে থাকে। স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন সুত্রে জানা গেছে, হাতকাটা মামুনের বিরুদ্ধে হত্যা,ধর্ষন,মাদক, লুটপাট, চাঁদাবাজি ও ডাকাতি সহ বিভিন্ন অভিযোগে বরিশালের বাকেরগঞ্জে ১২টি, বাউফলে ২টি, চট্রগামে ২টি করে মামলা রয়েছে। বাকেরগঞ্জের স্থানীয় যুবসমাজের একাধিক অভিভাবক সাংবাদিকদের জানান, হাতকাটা মামুন পুরো এলাকাটি মাদকের স¤্রাজ্য বানিয়ে ফেলেছে। আমাদের সন্তানরা নেশায় বুদ হয়ে গেছে। তাদের মাদকের পথ থেকে বাচাঁনো কঠিন হয়ে পড়েছে। হাতকাটা মামুনের মাদক বিক্রির এক সময়ের সহযোগী নাম গোপন রাখার শর্তে জানান, ফরিদপুর ও বাউফল সহ আশপাশের এলাকায় প্রতিদিন দুই থেকে তিন লাখ টাকার ইয়াবা, গাজা ও মদ বিক্রি করে থাকে মামুন। বাকেরগঞ্জের থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মাসুদুজ্জামান সাংবাদিকদের জানান,হাতকাটা মামুন এখন এলাকা ছাড়া।

তবে পুলিশ উক্ত খুনিকে এলাকা ছাড়া বললেও গোপন সংবাদে জানা গেছে, হাতকাটা মামুন এখনও এলাকায় বীরদর্পে ঘুরে বেড়াচ্ছে। তার বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রয়েছে এবং সেগুলোতে সে জামিনে রয়েছে। খুনি মামুনের হাতে নিহত বাকেরগঞ্জের সোনাপুর এলাকার গোলাম মহিউদ্দিন হাওলাদের পরিবার এতিম দুই সন্তান খুনি মামুনের ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে। খুনি মাদক ব্যবসায়ী হাতকাটা মামুনকে চলতি মাদক বিরোধী অভিযানে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিলে এলাকার ভুক্তভোগী মানুষের মাঝে স্বস্তি ফিরে আসতো বলে স্থানীয় এলাকাবাসী আক্ষেপ করে জানান।

Print Friendly, PDF & Email

এই মুহূর্তে অন্যরা যা পড়ছে