সংবাদ শিরোনাম
Home / ক্রাইম প্রতিদিন / ৫০ হাজার টাকা ঘুষ নিয়েও ছেলেকে ছাড়েনি পুলিশ, দাবি মায়ের

৫০ হাজার টাকা ঘুষ নিয়েও ছেলেকে ছাড়েনি পুলিশ, দাবি মায়ের

ক্রাইম প্রতিদিন: দিনাজপুর বীরগঞ্জ থানার ভারপ্রপাপ্ত কর্মকর্তা মোছাঃ সাকিলা পারভীনের বিরুদ্ধে অনিয়ম, দুর্নীতি, সীমাহীন ঘুষ বাণিজ্য এবং সাধারণ মানুষকে হয়রানীমুলক মিথ্যা মামলায় ফাঁসানের অভিযোগে এনে সংবাদ সম্মেলন করেছে এক ভুক্তভোগী পরিবার । বুধবার (২০ জুন) দুপুরে দিনাজপুর প্রেসক্লাব মিলনায়তনে(ওসি) সাকিলা পারভীনের বিরুদ্ধে অভিযোগে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন বীরগঞ্জের শাহানাজ পারভীন। তিনি লিখিত বক্তব্যে বলেন, বীরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাকিলা পারভীন, এসআই দুলাল হোসেন, এসআই আমজাদ হোসেন ও এসআই মসিউর রহমান পরিকল্পিত ভাবে মানুষকে হয়রানীর মাধ্যমে অর্থনৈতিক ফায়দা হাসিলে ব্যস্ত।

তিনি জানান, স্থানীয় সাধারণ নিরীহ মানুষকে নানান মামলায় ফাঁসানোর ভয়ভীতি দেখিয়ে ঘুষ বাণিজ্য চালিয়ে যাচ্ছে ওসিসহ এসআই’রা গত ১২ মে ২০১৮ তারিখে থানা ক্যাম্পাসে আয়োজিত অপেন হাউজ ডে’র আলোচনা সভায় উল্লেখিত বিষয়ে অভিযোগ উপস্থাপনের কারণে তার শিশু সন্তান স্কুল ছাত্র জিশান আল আহাদ ওরফে পারভেজসহ ৫ জনকে গাজা সেবনের দায়ে আটক করা হয়। দুইজন হিন্দু পরিবারের সন্তান হওয়ায় প্রভাবশালীদের ফোন ও মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে ওই রাতেই ছেড়ে দেয়া হয় অথচ আমার সন্তান এবং অপর আরো দুইজনকে ৫০ হাজার টাকার বিনিময়ে ছেড়ে দেয়ার কথা হলেও, টাকা নিয়ে বন্ধের দিনে তাদের ছেড়ে না দিয়ে ২৬ ধারায় কোর্টে চালান করেন। এক শিশু সন্তানকে মাদক মামলার আসামী বানিয়ে সে আদালতে চালান দিয়েছে যা কোন ভাবেই মেনে নিতে পারছি না। সত্য বক্তব্য তুলে ধরতে গিয়ে আমার সন্তান চক্রান্তমুলক মিথ্যা মাদক মামলার আসামী হয়েছে। তিনি বলেন, বীরগঞ্জ থানা পুলিশ মাদক নির্মূলের ধুয়া তুলে ২৬ ধারায় ঘুষ বাণিজ্য শুরু করেছে এবং নিরীহ মানুষকে হয়রানি করছে। তার দুই পৃষ্টার লিখিত বক্তব্যে বীরগঞ্জে ইতোপূর্বে ঘটে যাওয়া হত্যাসহ বিভিন্ন ঘটনা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাকিলাসহ থানা পুলিশ অর্থের বিনিময়ে ধামাচাপা দিয়েছে মর্মে উল্লেখ করা হয়েছে। এ ব্যাপারে শাহনাজ পারভীন সাংবাদিকদের বলেন, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাকিলার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের জন্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও দিনাজপুর পুলিশ সুপারসহ সংশ্লিষ্ট ১৮টি দপ্তরে অভিযোগ প্রদান করা হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে তিনি আইন-শৃংখলা বাহিনীর কর্মকর্তা হয়েও ওসি সাকিলা যে অপরাধমুলক কর্মকাণ্ড চালাচ্ছেন তা তদন্ত সাপেক্ষে বিচার প্রার্থনা করেন।

Print Friendly, PDF & Email

আরও পড়ুন.......

শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন
  • 71
    Shares