Home / এক্সক্লুসিভ / কী নিষ্ঠুর মানবতা!

কী নিষ্ঠুর মানবতা!

ক্রাইম প্রতিদিন, ডেস্ক : ক্ষণিকের জন্য প্রাপ্তির লালসায় মানুষ যখন বেপরোয়া হয়ে যায়, ঠিক তখনই তার স্নেহ, দয়া, মমত্ববোধ লোপ পায়। মানুষের হৃদয়ের অন্তরালে ধর্মীয় অনুশাসন, সামাজিক-রাষ্ট্রীয় দায়বদ্ধতা ও মানবিক মূল্যবোধের কিছুই আর অবশিষ্ট থাকে না। হারিয়ে যায় স্বচ্ছ চেতনাবোধ, বিলীন হয়ে যায় বিবেক ও মনুষ্যত্ব। এমনি কোনো মনুষ্যত্বহীন মানুষ নামের হিংস্র পশু লোভলালসা দেখিয়ে অবৈধ দৈহিক মেলামেশা করতে গিয়ে কোনো এক নারীকে গর্ভধারণ করতে হয়। তবে গর্ভধারণ করা গর্ভস্থ সন্তানের (ভ্রুণ) ধর্মীয় ও সামাজিক স্বীকৃতি না পেয়ে হয়তো সমাজের লোকলজ্জার ভয়ে রাতের অন্ধকারে গোপনে গর্ভপাত ঘটিয়ে পুকুরের পানিতে ফেলে দিয়ে গেছে।

এমনি একটি রোমহর্ষক ঘটনা ঘটেছে হাটহাজারী পৌরসভার ১নং ওর্য়াড দেওয়াননগর এলাকার রংগীপাড়ার সওদাগরবাড়িতে।

বুধবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে ৭-৮ মাস বয়সী মৃত ভ্রুণটি (গর্ভস্থ সন্তান) পৌর এলাকার ওই বাড়ির একটি পরিত্যক্ত পুকুরে ভাসতে দেখে বিষয়টি স্থানীয়রা থানা পুলিশকে অবহিত করেন। খবর পেয়ে হাটহাজারী মডেল থানার উপপরিদর্শক নিমাই চন্দ্র পাল সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থল থেকে মৃত ভ্রুণটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে এবং ময়নাতদন্তের জন্য ভ্রুণটি চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে প্রেরণ করে। এ ঘটনায় থানা পুলিশ বাদী হয়ে একটি অপমৃত্যু মামলা করেছে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ভ্রুণটি উদ্ধারকারী হাটহাজারী মডেল থানার উপপরিদর্শক নিমাই চন্দ্র পাল জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে ভ্রুণটি উদ্ধার করি। অবৈধভাবে গর্ভধারণ করে হয়তো কোনো নারী তার গর্ভস্থ সন্তানের (ভ্রুণ) ধর্মীয় ও সামাজিক স্বীকৃতি না পেয়ে হয়তো এ কাজটি করেছে। তবে বিষয়টি তদন্তের মাধ্যমে আরও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

এদিকে এ রোমহর্ষক হৃদয়বিদারক ঘটনাটির খবর এলাকায় মুহূর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে হাজার হাজার স্থানীয় উৎসুক মৃত ভ্রুণটি দেখতে ঘটনাস্থলে এসে ভিড় করেন। এ সময় স্থানীয়দের জঘন্যতম অবৈধ গর্ভপাতের সঙ্গে জড়িত পাষণ্ড নারী-পুরুষের প্রতি ঘৃণা ও ধিক্কার জানাতে দেখা গেছে।

আরও পড়ুন.......

শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন
  • 6
    Shares