Home / সারাদেশ / চাঁদপুর জেলা ছাত্রদলের সভাপতি ‘বিবাহিত’ সেক্রেটারি ‘মাদক ব্যবসায়ী’

চাঁদপুর জেলা ছাত্রদলের সভাপতি ‘বিবাহিত’ সেক্রেটারি ‘মাদক ব্যবসায়ী’

ক্রাইম প্রতিদিন, চাঁদপুর : ছাত্রদলের কেন্দ্র ঘোষিত চাঁদপুর জেলা ছাত্রদলের কমিটিকে ‘অযোগ্য’ বলে আখ্যায়িত করে তা বাতিলের দাবিতে ৪৮ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয়েছে পদবঞ্চিত নেতাকর্মীরা।

সংবাদ সম্মেলনে নবঘোষিত কমিটির সভাপতিকে বিবাহিত, সাধারণ সম্পাদককে মাদক ব্যবসায়ী ও সাংগঠনিক সম্পাদককে গরু চুরির মামলার আসামী বলে দাবি করেছেন পদবঞ্চিত নেতাকর্মীরা।

বুধবার (৬ জুন) বিকেল ৩টায় শহরের নতুন বাজারে জেলার ত্যাগি, নির্যাতিত তৃণমূল নেতকার্মী’র ব্যানারে সংবাদ সম্মেলন করে এই ঘোষণা দেয়া দেয়া হয়।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে পদবঞ্চিত ছাত্রদল নেতারা বলেন, বর্তমান কমিটির সভাপতি একজন বিবাহিত এবং সদ্য রাজনীতিতে আসা ছাত্রনেতা। নিকট অতিতেও তাকে রাজপথের কোনো আন্দোলন সংগ্রামে মাঠে দেখা যায়নি। এছাড়া ঘোষিত কমিটির সাধারণ সম্পাদক একজন মাদক ব্যবসায়ী। তার বিরুদ্ধে থানায় মাদক মামলা রয়েছে। আর সাংগঠনিক সম্পাদক একসময় চাঁদপুর সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের ক্লাস কমিটির সভাপতি ছিলেন। কিছুদিন আগেও তিনি গরু চুরির মামলায় চার মাস জেল খেটেছেন। বর্তমান কমিটির যুগ্ম সম্পাদক চাঁদপুরের বাসিন্দা নয়, তিনি মামার বাসায় থেকে পড়ালেখা ও রাজনীতি করেন। তার পিতা ঢাকা দক্ষিণ মহহানগর আওয়ামী লীগের ওয়ার্ড কমিটির যুুগ্ম সম্পাদক।

এতে নব-গঠিত কমিটি প্রত্যাখান করা হয় এবং অবিলম্বে এই কমিটি বাতিল ঘোষণার দাবি জানানো হয়। অন্যথায় বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলনের পাশাপাশি ছাত্রদলের এই কমিটি বাতিলের কঠোর আন্দোলন কর্মসূচির পালনে হুশিয়ারি দেন নেতারা।

একই সাথে সকলের পরামর্শে ত্যাগী ও সাহসী ছাত্রদের দিয়ে নতুন করে কমিটি গঠনের আহ্বান জানান। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন জেলা ছাত্রদল নেতা সফিউদ্দিন বাবলু।

লিখিত বক্তব্যে উল্লেখ করা হয়, গত ৫ জুন ছাত্রদলেল কেন্দ্রীয় সংসদ থেকে জেলা ছাত্রদলের নতুন কমিটি ঘোষনা করা হয়। এই কমিটিতে নির্যাতিত ত্যাগী, যোগ্য ও তৃণমূল নেতৃবৃন্দদের বাদ দেয়া হয়েছে। আমরা অত্যন্ত ক্ষোভ ও ঘৃণার সাথে জানাচ্ছি যে উক্ত কমিটি চাঁদপুরের জাতীয়তাবাদী আদর্শ তথা জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের ত্যাগী, নির্যাতিত ও তৃণমূল নেতাকর্মীদের বিপরীতে করা হয়েছে। জেলা বিএনপির আহŸায়ক শেখ ফরিদ আহমেদ মানিক আওয়ামী লীগের সাথে আঁতাত করে অঢেল টাকার প্রভাব খাটিয়ে চাঁদপুরের শক্তিশালি বিএনপি ও সহযোগী সহযোগি সংগঠনগুলোতে প্রায় ধ্বংসের কাছে নিয়ে গেছেন।

লিখিত বক্তব্যে আরো উল্লেখ করা হয়, ‘জেলা বিএনপির আহবায়ক অঢেল টাকার প্রভাব খাটিয়ে কেন্দ্র থেকে নিজের ব্যক্তিগত কর্মচারীর ন্যায় জি-হুজুর টাইপের অছাত্র-অযোগ্যদের দিয়ে কমিটি ঘোষণা করিয়েছেন। আমরা ঘোষিত কমিটিকে ঘৃণার সাথে প্রত্যাখান করছি। এই একই সাথে আগামী ৪৮ ঘন্টার মধ্যে এই কমিটি বাতিল করে জাতীয়তাবাদী আদর্শের সকল ত্যাগী, যোগ্য, নির্যাতিত ও তৃণমূল ছাত্রদলকর্মীর সমন্বয়ে এবং চাঁদপুরের সাবেক এমপি, সর্বশেষ ধানের শীষ প্রতীকে সংসদ সদস্য পদে নির্বাচন করা নেতৃবৃন্দ ও চাঁদপুরস্থ বিএনপি কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্যদের সাথে আলোচনা, পরামর্শে করে একটি শক্তিশালী কমিটি গঠনের আহ্বান করছি। অন্যথায় বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলনের পাশাপাশি ছাত্রদলের এই কমিটি বাতিলের আন্দোলন জোরদার করা হবে।’

এসময় উপস্থিত ছিলেন, চাঁদপুর পৌর ছাত্রদলের আহবায়ক সুকুমার রায়, সদস্য সচিব ফজলে রাব্বি, চাঁদপুর সরকারি কলেজ শাখার সাবেক যুগ্ম আহবায়ক জিএম সেলিম, কলেজ শাখার বর্তমান কমিটির সদস্য সচিব বারেক ভূইয়া, সদর থানা ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক মো. রোমান পাটওয়ারী, যুগ্ম আহবায়ক বাহাদুর পাটওয়ারী, ছাত্রদল নেতা কাউছার, আল-আমিন, রোজন চৌধুরী, ওমর ফারুক, সাগর ভুইয়া, সুমন বেপারী ও মো. নয়ন প্রমুখ।

শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন
  • 30
    Shares