Home / সারাদেশ / নড়াইল বাসীর আস্থার প্রতীক হবে পুলিশ : জসিম উদ্দিন

নড়াইল বাসীর আস্থার প্রতীক হবে পুলিশ : জসিম উদ্দিন

ক্রাইম প্রতিদিন, উজ্জ্বল রায়, নড়াইল : ‘পুলিশ’ শব্দটি শুনলেই দেশের ৯০ শতাংশ মানুষের মুখে বদনাম ছাড়া সুনামের গল্প আমরা শুনি না। অথচ এই ৯০ শতাংশ মানুষ কোনো না কোনোভাবে পুলিশের সহযোগিতা পেয়েছে- যা অস্বীকার করার কোন উপায় নেই। কিন্তু পুলিশ শব্দটি শুনলে মানুষের মধ্যে যেন আর কোনো ভীতি তৈরি না হয় এমনই নির্দেশনা দিয়েছেন নড়াইলের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন পিপিএম। আর সে নির্দেশনা অনুযায়ী নড়াইলের ৪টি থানার পুলিশ, সকল ফাঁড়ির পুলিশ, জেলা গোয়েন্দা শাখা, ক্রিমিনাল ইনভেস্টিগেশন ডিপার্টমেন্টসহ নড়াইলে কর্মরত সকল পুলিশের মধ্যে পরিবর্তন পরিলক্ষিত হয়েছে। এছাড়াও পুলিশের বিরুদ্ধে ঘুষ-দুর্নীতির অভিযোগ উঠলেও তিনি কঠোর হস্তে দমন করবেন বলে হুশিয়ারি প্রদান করেছেন। রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা প্রদান করে এমন একটি বাহিনীর নাম পুলিশ। কিন্তু পুলিশ তো মানুষই। তাইনা? বাংলাদেশে পুলিশ বাহিনীতে অন্তর্ভুক্ত হওয়ার জন্য যেসব পরীক্ষা নেয়া হয়, তাতে একটি মানুষের ব্যক্তিগত চরিত্রের সবটা ফুটে ওঠে না। তাই প্রত্যেকটি পুলিশের আচরণেও মানুষ হিসেবে ভিন্ন রূপ দেখা যায়। আমাদের চরিত্রের সবচেয়ে বড় দোষ হলো- চিলে কান নিয়ে গেছে এটা শুনলেই কান খুঁজতে আমরা দৌড়ে বেড়াই। কিন্তু নিজের কানে হাত দিয়ে কখনো আমরা দেখি না। খারাপ খারাপ স্মৃতিগুলো আমরা এতো বেশি মনের দৃশ্যপটে যতœ করে রাখি যে, ভালো স্মৃতিগুলো সেখানে আর স্থান করে নিতে পারে না। আবার এই পুলিশের মধ্যেই অনেকে রয়েছেন যারা দিনরাত দায়িত্ব পালন করেও সাধারণ মানুষ ও রাষ্ট্রের নিরাপত্তা সঠিকভাবে পালন করে যাচ্ছেন। আমাদের দেশের পুলিশের দায়িত্বগুলো আমরা কি মনে করব? এটাকি শুধু তার পোশাকের দায়িত্ব? মানুষ হিসেবে সেই পুলিশরা কখনো কি নীরব থাকতে পেরেছে জনগণের বিপদে? মানবীয় দায়িত্ববোধ থেকে সামনের সারিতে থেকে দেশ ও জাতির সমস্ত বিপদে নেতৃত্ব দিয়েছে এই পুলিশ নামের আতঙ্করাই। নড়াইলের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন পিপিএম নড়াইলে যোগদানের পরই ট্রেইনি রিক্রুট কনস্টেবল (টিআরসি) পদে লোক নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হয়। মাত্র ১০০ টাকা ব্যাংক ড্রাফটের মাধ্যমে যোগ্য ও মেধাবীদের পুলিশে চাকুরি দিয়ে তিনি নড়াইলবাসীর অন্তরে স্থান করে নিয়েছেন।

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন পিপিএম ক্রাইম প্রতিদিনকে বলেন, পুলিশ সুপার হয়েছি বলে মনুষ্যত্ব ও বিবেকবোধ বিলীন হয়ে যায়নি। বরং পুলিশের পেশায় যোগদানের পর জনগণের ওপর দায়িত্ব আরো বেড়ে গেছে। জনগণের নিরাপত্তার দায়িত্ব যখ ন নিয়েছি নিজের জীবন দিয়ে হলেও নড়াইলবাসীকে সুরক্ষিত রাখবো।

আরও পড়ুন.......

শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন
  • 513
    Shares