Home / জবস অ্যান্ড ক্যারিয়ার / পুলিশে এসআই পদে জনবল নিয়োগ

পুলিশে এসআই পদে জনবল নিয়োগ

ক্রাইম প্রতিদিন, ডেস্ক : বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীর মূলনীতি হচ্ছে ‘শান্তি শৃঙ্খলা নিরাপত্তা প্রগতি’। দেশের সব শ্রেণীর নাগরিকের সার্বিক নিরাপত্তা ও আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণের দায়িত্বে থাকেন পুলিশ বাহিনী। দেশ সেবার মহান ব্রত নিয়ে যারা নিজের জীবিকা নির্বাহ করতে চান, তাদের জন্য পুলিশ বাহিনী অন্যতম। সম্প্রতি বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকে সাব-ইন্সপেক্টর (এসআই নিরস্ত্র) পদে নিয়োগের জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে। সারাদেশে পুলিশের ৮টি বিভাগীয় রেঞ্চের মাধ্যমে প্রার্থী বাছাই করা হবে। বাংলাদেশ পুলিশের সাব-ইন্সপেক্টর (এসআই নিরস্ত্র) পদে যোগ দিয়ে দেশ সেবায় অংশ নিতে পারেন। বাংলাদেশে স্থায়ীভাবে বসবাসরত নারী-পুরুষ উভয়ে এতে আবেদন করতে পারবেন।

আগ্রহী প্রার্থীদের নির্দিষ্ট তারিখে নিজ বিভাগীয় রেঞ্চে সকাল ৯টায় শারীরিক মাপ ও শারীরিক পরীক্ষার জন্য উপস্থিত হতে হবে।

আবেদনকারীর বয়স ও যোগ্যতা : পুলিশের সাব-ইন্সপেক্টর পদে ১৯ হতে ২৭ বছর বয়সী অবিবাহিত বাংলাদেশি নাগরিকরা আবেদন করতে পারবেন। এ ছাড়া মুক্তিযোদ্ধা কোটায় আবেদনের বয়স হবে ১৯ হতে ৩২ বছর। এ ক্ষেত্রে কোনো এফিডেভিট গ্রহণযোগ্য নয়। প্রার্থীকে অনুমোদিত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে নূন্যতম স্নাতক পাস হতে হবে। সেই সঙ্গে থাকতে হবে কম্পিউটার চালনার অভিজ্ঞতা।

শারীরিক যোগ্যতা : সাধারণ ও অন্যান্য কোটায় পুরুষ প্রার্থীদের উচ্চতা ৫ ফুট ৪ ইঞ্চি, বুকের মাপ ৩০ ইঞ্চি, সম্প্রসারিত ৩২ ইঞ্চি এবং নারী প্রার্থীর উচ্চতা ৫ ফুট ২ ইঞ্চি। ওজন বয়স ও উচ্চতা অনুযায়ী (বডি মাস ইনডেস্ক) থাকতে হবে।

পরীক্ষার সময় ও স্থান : আটটি বিভাগীয় রেঞ্জের প্রাথমিক শারীরিক মাপ ও পরীক্ষা ১৩, ১৪ ও ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ তারিখে সকাল ৯টা থেকে অনুষ্ঠিত হবে। নির্ধারিত তারিখে ঢাকা রেঞ্জ বা বিভাগের প্রাথমিক শারীরিক মাপ ও পরীক্ষা হবে এপিবিএন পুলিশ লাইন্স, উত্তরা, ঢাকায়। ময়মনসিংহ রেঞ্জের পরীক্ষা হবে ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ লাইন্স, ময়মনসিংহে। চট্টগ্রাম রেঞ্জের পরীক্ষা হবে সিএমপি পুলিশ লাইন্স, চট্টগ্রামে। রাজশাহী রেঞ্জের পরীক্ষা হবে রাজশাহী জেলা পুলিশ লাইন্স, রাজশাহীতে। রংপুর রেঞ্জের পরীক্ষা হবে রংপুর জেলা পুলিশ লাইন্স, রংপুরে।

খুলনা রেঞ্জের পরীক্ষা হবে আরআরএফ পুলিশ লাইন্স, খুলনায়। বরিশাল রেঞ্জের পরীক্ষা হবে বরিশাল জেলা পুলিশ লাইন্স, বরিশালে এবং সিলেট রেঞ্জের পরীক্ষা হবে সিলেট জেলা পুলিশ লাইন্স, সিলেটে। শারীরিক পরীক্ষার সময় শিক্ষাগত যোগ্যতার সব সনদের মূল কপি, সর্বশেষ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান কর্তৃক প্রদত্ত চারিত্রিক সনদের মূল কপি, নাগরিকত্বের সনদের মূল কপি, জাতীয় পরিচয়পত্রের মূল কপি এবং ৩ কপি সদ্য তোলা সত্যায়িত পাসপোর্ট আকারের ছবিসহ প্রয়োজনীয় কাগজ আনতে হবে।

আবেদন প্রক্রিয়া : শারীরিক মাপে ও শারীরিক পরীক্ষায় উর্ত্তীণ প্রার্থীদেরকে ওই দিন তিন টাকা নগদ মূল্য প্রদান করে আবেদন ফরম নিতে হবে। আবেদন ফরমটি যথাযথভাবে পূরণ করে ৩ কপি সদ্য তোলা সত্যায়িত পাসপোর্ট আকারের ছবি, শিক্ষাগত যোগ্যতার সব সনদের সত্যায়িত কপি, সর্বশেষ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান কর্তৃক প্রদত্ত চারিত্রিক সনদ, জাতীয় পরিচয়পত্রের সত্যায়িত কপি, কম্পিউটার প্রশিক্ষণের সনদের সত্যায়িত কপি, ইন্সপেক্টর জেনারেল, বাংলাদেশ পুলিশের অনুকূলে রাষ্ট্রায়াত্ত ব্যাংক হতে পরীক্ষা ফি ৩০০ টাকা, ১-২২১১-০০০০-২০৩১ কোড নম্বরে ট্রেজারি চালানের মাধ্যমে জমা দিয়ে চালানের মূলকপিসহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় কাগজসহ ১৯ ফেব্রুয়ারির মধ্যে নিজ নিজ রেঞ্জে ডিআইজি এর কার্যালয়ে জমা দিতে হবে।

লিখিত পরীক্ষার সময় ও মান বন্টন : প্রার্থীদের লিখিত পরীক্ষা নেয়া হবে তিন ধাপে। প্রথমে ১০০ নম্বরের ইংরেজি, বাংলা রচনা ও কম্পোজিশন পরীক্ষা হবে আগামী ১৯ মার্চ সকাল ১০টায় চলবে ১টা পর্যন্ত। ৩ ঘণ্টা ব্যাপী সাধারণ জ্ঞান ও পাটিগণিত বিষয়ে ১০০ নম্বরের পরীক্ষা হবে ২০ মার্চ সকাল ১০টা থেকে। এছাড়াও মনস্তত্ত্ব বিষয়ে ৫০ নম্বরের পরীক্ষা হবে ২১ মার্চ সকাল ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত। লিখিত পরীক্ষার স্থান প্রার্থীদের পরবর্তীতে জানানো হবে।

মৌখিক পরীক্ষা : লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের মৌখিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে। মৌখিক পরীক্ষার স্থান, তারিখ ও সময় প্রার্থীদের জানিয়ে দেয়া হবে। মৌখিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও ভিআর ফরম পূরণ করতে হবে। চূড়ান্তভাবে স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও ভিআর সম্পূর্ণ হলে মৌলিক প্রশিক্ষণের জন্য মনোনীত করা হবে।

প্রশিক্ষণ : বহিরাগত ক্যাডেট হিসেবে নির্বাচিত প্রার্থীদের বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমি, সারদা, রাজশাহীতে ১ বছর মেয়াদি মৌলিক প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করতে হবে। প্রশিক্ষণকালীন প্রার্থীদের বিনা মূল্যে আহার, বাসস্থান, ইউনিফর্ম, চিকিৎসাসেবা এবং মাসিক ১ হাজার টাকা হারে ভাতা প্রদান করা হবে।

২০১২ সালে নিয়োগ পেয়ে স্পেশাল ব্রাঞ্চে কাজ করছেন শেখ গোলাম মোস্তফা রুবেল। তিনি বলেন, বাংলাদেশর প্রধান আইন প্রয়োগকারী সংস্থা হচ্ছে পুলিশ বাহিনী আর সাব-ইন্সপেক্টর হচ্ছে এর মেরুদণ্ড। এদের প্রায় সব মামলার তদন্তসহ দেশের সার্বিক আইন-শৃঙ্খলার দায়িত্ব পালন করতে হয়। এরা মূলত মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তা, জনগণের সরাসরি সেবা করার সুযোগ পেয়ে থাকে। যা অন্যপেশায় এ সুযোগ কম।

সাইবার পুলিশ ব্যুরো, সিআইডিতে কর্মরত আছেন সাব-ইন্সপেক্টর মোহাম্মদ শাহ্ আলী। তিনি বলেন, এ পেশাটা অনেক চ্যালেঞ্জিং তাই বুদ্ধি, সাহস ও দক্ষতার সঙ্গে এই চ্যালেঞ্জকে মোকাবেলা করে কাজ করতে হয়। যারা জনগণের সেবা করতে চায় তাদের এ পেশায় আশা উচিত বলে আমি মনে করি।

নিয়োগ ও বেতন : সফলভাবে মৌলিক প্রশিক্ষণ শেষ হলে জাতীয় বেতন স্কেল ২০১৫ অনুযায়ী ১০ গ্রেড ১৬ হাজার থেকে ৩৮ হাজার ৬৪০ টাকা হারে বেতন বোনাস পাবেন। এ ছাড়াও বিনা মূল্যে পোশাক সামগ্রী, চিকিৎসা, রেশন্স সুবিধা ও ঝুঁকি ভাতা প্রাপ্ত হবে। প্রচলিত বিধি অনুযায়ী উচ্চতর পদে পদোন্নতি প্রাপ্তিসহ জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে বিদেশ ভ্রমণ ও আর্থিক সচ্ছলতা অর্জনেরও সুযোগ থাকবে।

শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন
  • 27
    Shares