Breaking News

ফের ভাঙনের মুখে এরশাদের জাপা

ক্রাইম প্রতিদিন, ডেস্ক : আরেক দফা ভাঙনের মুখে পড়েছে এরশাদের নেতৃত্বাধীন জাতীয় পার্টি (জাপা)। জাতীয় নির্বাচন নিয়ে মূলত: জাতীয় পার্টিতে ভাঙাগড়ার খেলা শুরু হয়। বিগত দিনের ধারাবাহিকতা ধরে এবারও সে পথেই ভাঙ্গনের মুখে পড়েছে দলটি।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সাথে জাপার টানাপোড়েন শুরু হয়। যদিও দলটির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদ বিভিন্ন সময় মহাজোটে থাকার কথা সুস্পষ্টভাবে উচ্চারণ করেন। মহাজোটে জাতীয় পার্টির অংশগ্রহণ নিশ্চিত করেই জাপার আসন বণ্টন প্রক্রিয়া শুরু হয়। মহাজোট থেকে অন্তত ৭০টি আসনের দাবি ছিল এরশাদের। শুরুর দিকে এরশাদকে বশে রাখতে এ আশ্বাস বাস্তবায়নের ঘোষণাও দেয় আওয়ামী লীগ। কিন্তু মহাজোটের অন্যান্য শরিকদের তীব্র আপত্তির মুখে জাপার আসন বণ্টন প্রক্রিয়া কিছুটা থমকে যায়। ঠিক নির্বাচনের আগ মুহূর্তে জাপার সাথে ক্ষমতাসীন দলের মহাজোটের চূড়ান্ত টানাপোড়েন শুরু হয়।

জাতীয় পার্টি দলের প্রার্থী তালিকায় ৭০ আসন দাবি করে প্রার্থীদের সবুজ সংকেত ও দেয়। তবে কিছু কিছু ক্ষেত্রে মনোনয়ন বাণিজ্যের অভিযোগ উঠে জাপা চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদ এবং মহাসচিব এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদের উপর। এসব নিয়ে ব্যাপক ক্ষোভ-বিক্ষোভ হয় জাতীয় পার্টিতে। ক্ষোভ বিক্ষোভের মুখেই হঠাৎ করে জাপা মহাসচিব রুহুল আমিন হাওলাদারকে সরিয়ে সরকারের প্রতিমন্ত্রী পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য মশিউর রহমান রাঙ্গাকে নতুন মহাসচিবের দায়িত্ব দেওয়া হয়। মূলত: রাঙ্গাকে দায়িত্ব দেয়া হয় আওয়ামী লীগের সাথে আসন ভাগাভাগি যাতে সন্তোষজনক পর্যায়ে নিয়ে যায়। নয়া মহাসচিব দায়িত্ব পেয়ে সরকারের সঙ্গে ব্যাপক দেন-দরবার করেও কাঙ্ক্ষিত আসন জাপার জন্য বাগিয়ে আনতে পারেননি। যার ফলে বিক্ষুব্ধ এরশাদ পদচ্যুত করা মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদারকে পুনরায় চেয়ারম্যানের বিশেষ সহকারী নিয়োগ দিয়ে পার্টি চেয়ারম্যানের অনুপস্থিতে সব দায়িত্ব তাঁকে অর্পণ করেন। আর এসব ঘটনা নিয়েই জাতীয় পার্টির অভ্যন্তরে ব্যাপক ক্ষোভ বিক্ষোভ শুরু হয়।

একাধিক সূত্র জানায়, মহাসচিব এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদারকে নতুন দায়িত্ব দেওয়া নিয়ে বেগম রওশন এরশাদ তেলে বেগুনে জ্বলে উঠেন। জিএম কাদেরও বিক্ষুব্ধ হন। আর নয়া মহাসচিব গতকাল রাত থেকেই হঠাৎ করে লাপাত্তা হয়ে যান।

সূত্রের দাবি আজ যে কোন মুহূর্তে জাপা ভাঙনের ঘোষণা আসতে পারে। বেগম রওশন এরশাদ এবং নয়া মহাসচিব মশিউর রহমান রাঙ্গাকে নিয়ে নতুন কমিটি গঠন হতে পারে। আর এ কমিটি গঠনের নেপথ্যে সরকারের সহায়তা রয়েছে বলে জানা গেছে। অপরদিকে, এরশাদের সঙ্গে এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদের কমিটিও বহাল থাকার সম্ভাবনা রয়েছে। একাধিক সূত্র জানায়, আওয়ামী লীগের সঙ্গে আজকের মধ্যে আসন বণ্টন সমঝোতা না হলে জাতীয় পার্টি আরেক দফা ভাঙ্গনের মুখে পড়বে এটা নিশ্চিত।

শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন