Home / অপরাধ / বান্দরবানে কলেজ ছাত্রীর বাবা-মা কে গাছের সাথে বেঁধে নির্যাতন : আটক ২

বান্দরবানে কলেজ ছাত্রীর বাবা-মা কে গাছের সাথে বেঁধে নির্যাতন : আটক ২

ক্রাইম প্রতিদিন, উজ্জ্বল বড়ুৃয়া,লামা (বান্দরবান) : লামার ফাইতং ফাদোখোলায় মধ্যযুগীয় কায়দায় বেঁধে কলেজ ছাত্রী মা বাবাকে নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জমিজমার বিরোধকে কেন্দ্র করে প্রতিবেশী ফারুকের নেতৃত্বে মুখোশধারী একদল সন্ত্রাসী নারীদের শ্লীলতা হানি করে বেঁধে বাড়ী ভাংচুর করে স্বর্ণ, নগদ টাকা ও মোবাইল ফোন সহ ৫ লক্ষ টাকার মালামাল লুট করেছে। এলাকাবাসীর সহযোগীতায় ঘটনার নায়ক ফারুক কে আটক করে পুলিশের কাছে সোপর্ধ করেছে। ফাইতং ফাঁড়ীর এএসআই সুজন বড়ুয়ার নেতৃত্ব পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে বাদশা নামের আরো একজনকে আটক করেছেন বলে জানা গেছে। আহতদের চকরিয়া সরকারী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সরেজমিনে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, পার্বত্য লামার ফাইতং ফাদোখোলা এলকার আব্দুল করিম (৬৫) এর একখন্ড জমি জবরদখলের উদ্দেশ্যে প্রতিবেশী নুরুল ইসলামের পুত্র ফারুক (৪০) দীর্ঘ দিন ধরে চেষ্টা করে আসছিল। তারই ধারাবাহিকতায় ফারুক ও তার ২ ভাই চকরিয়ার বিভিন্ন এলাকা থেকে ৩০/৪০ জন ভাড়াটিয়া নিয়ে সন্ত্রাসী হানা দেয় আব্দুল করিমের বাড়ীতে। আব্দুল করিমের পরিবারের লোকজন বাধা দিতে চেষ্টা করলে সন্ত্রাসীরা আব্দুল করিম (৬৫) তার স্ত্রী ছফুরা বেগম (৫০) কে বেদম মারধর সহ শালিনতা হানি করে রশি দিয়ে হাত-পা বেঁধে পার্শ্বের জমিনে ফেলে রাখে। এবং কলেজ পড়ুয়া যুবতী কন্যা জুহাইরা বেগম (১৯) কে গাছের সাথে বেঁধে রাখে। তারপর বাড়ীর অপরাপর বউঝি কে মারধর করে বসত বাড়ীতে ঢুকে বাড়ীর আলমিরা সহ আসবাবপত্র ভাংচুর করে নগদ টাকা, স্বর্ন , মোবাইল সেট সহ ৫ লক্ষ টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যাবার সময় এলাকার লোকজন এগিয়ে এসে আহত ও বেঁধে রাখা নারী পুরুষদের উদ্ধার করে চকরিয়া হাসপাতালে পাঠায়। পরে এলাকার লোকজন ধাওয়া করে চকরিয়া বানিয়ারছড়া ষ্টেশন এলাকা থেকে ঘটনার প্রধান হোতা ফারুক কে আটক করে স্থানীয় ফাইতং ফাঁড়ীর পুলিশের কাছে সোপর্ধ করেন।

খবর পেয়ে ফাইতং ফাঁড়ীর এএসআই সুজন বড়ুয়ার নেতৃত্ব পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন এবং ঘটনাস্থল থেকে বাদশা নামের আরো একজনকে আটক করেছেন বলে জানা গেছে। আহতদের চকরিয়া সরকারী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সোমবার দুপুর ১২ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। ফাইতং ফাঁড়ির এএসআই সুজন বড়ুয়া ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন।

এ সময় আহতরা হলেন, আব্দুল করিম (৬৫) তার স্ত্রী ছফুরা বেগম (৫০), নুর মোহাম্মদ (৪৫), হালিমা বেগম (৯০) এবং কলেজ ছাত্রী জুহাইরা বেগম(১৯)।

এ ব্যাপারে আহতদের পক্ষে আব্দুল করিমের জামাতা মাহমুদুল করিম মামলার প্রস্তুতি নিয়েছেন বলে জানিয়েছেন।

শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন
  • 57
    Shares