সংবাদ শিরোনাম

মাহাথিরের চ্যালেঞ্জ, কঠিন পরীক্ষায় নাজিব রাজাক

ক্রাইম প্রতিদিন, ডেস্ক : মালয়েশিয়ার জাতীয় নির্বাচন বুধবার। নির্বাচনকে ঘিরে দেশটির সাধারণ জনগণ দুই জোটের হয়ে ব্যাপক প্রচার চালিয়েছেন। রাত ১২টায় শেষ হচ্ছে নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা। দেশটির প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাক গত ৬ এপ্রিল পার্লামেন্ট বিলুপ্ত ঘোষণা করেন।

এবারের নির্বাচনটি ক্ষমতাসীন জোটের জন্য সবচেয়ে বড় পরীক্ষা হতে চলেছে বলে মত দিয়েছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। কারণ, বেশ চাপের মুখেই আছেন ৬৪ বছর বয়সী নাজিব। স্টেট ফান্ড অর্থ-কেলেঙ্কারি এবং দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির কারণে প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে তেমন সন্তুষ্ট নয় মালয়েশিয়ার সাধারণ জনগণ।

এদিকে বিরোধী দল থেকে প্রধানমন্ত্রী পদে মনোনয়ন পেয়েছেন নাজিবের সাবেক গুরু মাহাথির মোহাম্মদ। এবারের নির্বাচনে আধুনিক মালয়েশিয়ার স্থপতি হিসেবে পরিচিত সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহাথিরকেই এগিয়ে রাখছেন বিশ্লেষকরা।

দেশটির নির্বাচনী পর্যবেক্ষণ প্রতিষ্ঠান মারদেকা সেন্টার জানায়, জনপ্রিয়তার ভোট জরিপে ৪৩ দশমিক ৩ শতাংশ পেয়েছে মাহাথিরের পাকাতান হারাপান জোট। ৪০ দশমিক ৩ শতাংশ ভোটে দ্বিতীয় স্থানে নাজিবের বারিসান ন্যাশনাল।

টানা ২২ বছর শাসনের পর ২০০৩ সালে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা থেকে সরে দাঁড়ান মাহাথির মোহাম্মদ। লম্বা বিরতি দিয়ে ৯২ বছর বয়সে আবারও নির্বাচনী লড়াইয়ে নেমেছেন তিনি। দায়িত্ব নিয়েছেন তার সময়ে বরখাস্ত হওয়া উপপ্রধানমন্ত্রী আনোয়ার ইব্রাহিমের জোট পাকাতান হারাপানের।

মাহাথির মোহাম্মদ যদি নির্বাচনে অংশ না নিতেন, তাহলে এ নির্বাচন একপেশে হতো বলে অনেকের ধারণা। তার সাবেক দল ইউনাইটেড মালয়স ন্যাশনাল অর্গানাইজেশনকে এ নির্বাচনে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছেন মাহাথির মোহাম্মদ।

বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাকের কর্মকাণ্ডে হতাশ হয়ে ২০০৩ সালে এ দল থেকে পদত্যাগ করেছিলেন মাহাথির মোহাম্মদ। সেখান থেকে পদত্যাগের পর মাহাথির মোহাম্মদ নিজেই একটি রাজনৈতিক দল গঠন করেন। দলটি সরকারবিরোধী জোটে যোগ দেয়।

এই মুহূর্তে অন্যরা যা পড়ছে

শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন
  • 18
    Shares
x

Check Also

বৈধ রিক্রুটিং এজেন্সির জন্য মালয়েশিয়ায় শ্রমবাজার উন্মুক্ত

ক্রাইম প্রতিদিন : কোনো সিন্ডিকেট নয় মালয়েশিয়ার জনশক্তি ...