Home / এক্সক্লুসিভ / সাংবাদিক সুমনকে নির্যাতনের ঘটনায় আরও ৫ পুলিশ বরখাস্ত

সাংবাদিক সুমনকে নির্যাতনের ঘটনায় আরও ৫ পুলিশ বরখাস্ত

ক্রাইম প্রতিদিন, ডেস্ক : বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল ডিবিসি নিউজের ক্যামেরাপারসন সুমন হাসানকে নির্যাতনের ঘটনায় বরিশাল মেট্রোপলিটন ডিবি পুলিশের উপকমিশনার উত্তম কুমার পালকে তার দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। এছাড়া এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত ডিবি পুলিশের আরও ৫ পুলিশ সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

এর আগে সুমন হাসানকে নির্যাতনকারী ওই ডিবি পুলিশের টিমের ৩ সদস্যকে বরখাস্ত করা হয়। এ নিয়ে নির্যাতনকারী ডিবি পুলিশের ওই টিমের সব সদস্যকেই বরখাস্ত করেছে মেট্রোপলিটন পুলিশ।

সোমবার সন্ধ্যায় বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের পক্ষ থেকে প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়।

এ ঘটনায় সাময়িক বরখাস্তরা হলেন, সুমন হাসানকে নির্যাতনকারী ডিবি পুলিশের ওই টিমের প্রধান এসআই আবুল বাশার, এএসআই মো. আক্তারুজ্জামান, স্বপন চন্দ্র দে, কনস্টেবল মাসুদুল হক, মো. আব্দুর রহিম, চৌধুরী রাসেল পারভেজ, মো. হাসান মাহামুদ ও কাজী সাইফুল ইসলাম।

এদের মধ্যে ১৩ মার্চ দুপুরে ঘটনার পরপরই প্রাথমিক তদন্তে দোষী প্রমাণিত হওয়ায় ১৪ই মার্চ সাময়িক বরখাস্ত হন প্রধান নির্যাতনকারী পুলিশ কনস্টেবল মাসুদুল হক। এরপরে অপরাধের গুরুত্ব বিবেচনা করে ১৫ মার্চ আরও দুজন অর্থাৎ আব্দুর রহিম ও চৌধুরী রাসেল পারভেজকে বরখাস্তের আদেশ দেয়া হয়। সর্বশেষ গঠিত তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনের ওপর ভিত্তি করে এবং পুলিশ হেডকোয়ার্টারের নির্দেশনা অনুযায়ী ১৮ মার্চ রাতে সাংবাদিক নির্যাতনকারী ডিবি পুলিশের ওই টিমের নেতৃত্ব দেয়া এসআই আবুল বাশার এবং এএসআই আক্তার এবং স্বপনসহ ৫ জনকে সাময়িকভাবে বরখাস্তের আদেশ দিয়েছেন পুলিশ কমিশনার এসএম রুহুল আমিন।

ওই প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে, সুমনকে নির্যাতনকারী ডিবি পুলিশের টিমের ওই আট সদস্যকে বহিষ্কারের পাশাপাশি তাদের প্রত্যেককে আলাদাভাবে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয়েছে। নোটিশের জবাব পাওয়ার পরে স্ব-স্ব অপরাধ অনুযায়ী তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় বিভাগীয় শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। ডিবি পুলিশের উপকমিশনার উত্তম কুমার পালকে তার অতিরিক্ত দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি প্রদান করা হয়েছে। সেই সঙ্গে সদ্য যোগদানকারী উপকমিশনার মোহাম্মদ মোয়াজ্জেম হোসেন ভূঞাকে ডিবির উপকমিশনার পদে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার এসএম রুহুল আমিন বলেন, ‘বিষয়টি নিয়ে আমি প্রথমেই দুঃখ প্রকাশ করেছি। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের সঠিক শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে। ইতিমধ্যে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে সব সদস্যকেই। এছাড়া তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলাও করা হচ্ছে।’

প্রসঙ্গত, ১৩ই মার্চ দুপুরে বরিশাল নগরীর দক্ষিণ চকবাজার এলাকার বিউটি রোডে মাদকসংক্রান্ত অভিযানের তথ্য জানতে গেলে ডিবি পুলিশের এসআই আবুল বাশারের টিমের ৮ পুলিশ সদস্য ডিবিসি নিউজের ক্যামেরাপারসন সুমন হাসানকে বেধড়ক মারধর করে। পরে ডিবি কার্যালয়ে নিয়ে অমানবিক নির্যাতন করা হয়। খবর পেয়ে সুমন হাসানের সহকর্মীরা ডিবি কার্যালয়ে গেলে সেখানেও পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সামনে বসেও টেলিভিশন চ্যানেলের কয়েকজন সাংবাদিককে লাঞ্ছিত করা হয়। ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে তর্ক-বিতর্কের পর সাংবাদিকরা সুমন হাসানকে গুরুতর আহত ও অসুস্থ অবস্থায় বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। এখনও সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ওই হাসপাতালে। এ ঘটনার পরপরই সারা দেশের বিভিন্ন স্থানে এ অমানবিক নির্যাতনের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করা হয়। এছাড়া সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোতে সৃষ্টি হয় সমালোচনার ঝড়।

আরও পড়ুন.......

শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন
  • 39
    Shares