Home / সারাদেশ / ২ লাখ ৮০ হাজার টাকার সুদ ২৫ লাখ টাকা : টাকা না পাওয়ায় নিজ ঘরে আটক

২ লাখ ৮০ হাজার টাকার সুদ ২৫ লাখ টাকা : টাকা না পাওয়ায় নিজ ঘরে আটক

ক্রাইম প্রতিদিন, শাহিনুল ইসলাম, নীলফামারী : ২ লক্ষ ৮০ হাজার টাকার সুদ বাবদ ১৮ লক্ষ টাকা দেওয়ার পরেও ১২ লক্ষ টাকার দাবিতে অটো চালক সানাউল্লা(৩৭) ও স্ত্রী নাজমা(২৪)কে নিজবাড়ীতে আটকে রাখে বিজলী(২৬)। ঘটনাটি ঘটেছে সৈয়দপুর নিচুকলোনী এলাকায়।

সোমবার (২৬শে মার্চ) সকালে সৈয়দপুর নিচুকলোনী এলাকায় দিন সুদের টাকা না পাওয়ায় বিজলী তার নিজবাড়ীতে অটোচালক সানাউল্লা,নাজমা নামে দুই স্বামী স্ত্রী কে আটক করে রাখে। সন্ধ্যায় আটক সানাউল্লা সুকৌশলে সেখান থেকে পালিয়ে গিয়ে এলাকার লোকজনের কাছে বিষয়টি প্রকাশ করে। এলাকার লোকজন রাতে বিজলীর বাড়ীতে যাওয়ায় স্ত্রী নাজমাকে ছেড়ে দেয়।

নাজমা জানায়, স্বামী সানাউল্লা ৩ বছর আগে দৈনিক সুদে ২ লক্ষ ৮০ হাজার টাকা নেয় বিজলীর কাছে। উক্ত টাকায় সানাউল্লাকে প্রতিমাসে সুদ বাবদ ৬০ হাজার টাকা দিতে হয়। এমনকি কোন মাসে সুদের টাকা দিতে না পরলে সে টাকা মুল টাকার সাথে যোগ হয়ে সেই টাকার অনুপাতে সুদ দিতে হত তাদের। সেই ২ লক্ষ ৮০ হাজার টাকার সুদ বাবদ ১৮ লক্ষ টাকা দেওয়ার পরেও বিজলী এখনো ৭ লক্ষ ১০ হাজার টাকা পায় নাজমার কাছে। সুদে টাকার জন্য বাড়ী বন্ধকসহ বিভিন্ন এনজিও হতে টাকা লোন নিতে হয়েছে। এমনকি সুদের টাকা দিতে রিটার্ড আর্মি মোঃ জাকিরের কাছে ৫ লক্ষ ও তার ছোট ভাই (সাংবাদিক) মোঃ জাহিদুল ইসলাম( জাহিদ)এর কাছে ১ লক্ষ টাকা সুদের উপর তাকে নিতে হয়। ঋণে জ্বরজড়িত হয়ে পড়া নাজমা আর টাকা দিতে পারবেনা বলে জানিয়ে দেয় বিজলীকে। এতে বিজলী নাজমার নামে গত ২২/৩ তারিখে বিচার বসায়।বিচারে ৮ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আল মামুনের সরকার বিনা সুদে বাকী টাকা পরিশোধে জন্য ১৫ মাস সময় দিয়েছিল নাজমাকে।

এবিষয়ে ৮ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আল মামুন জানায় আমি বিচার বসে সবার সহমতে ১৫ মাস সময় দিয়ে সমাধান করেছিলাম।কিন্তু সমাধানের পর বিজলীর এ কাজটি করা ঠিক হয়নি।

এলাকা বাসী জানায়,বিজলী অত্র এলাকায় বিজলী সুদারু নামে পরিচিত। তার কাছে সুদের টাকা নিয়ে অনেক মানুষ নিঃস্ব হয়ে পড়েছে। সে সমাজটাকে নষ্ট করে ফেলছে। তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া প্রয়োজন বলে মনে করে এলাকাবাসী।

Print Friendly, PDF & Email

এই মুহূর্তে অন্যরা যা পড়ছে