Home / এক্সক্লুসিভ / ৫ বছরের শিশুর গোপনাঙ্গে গরম পানি ঢেলে মধ্যযুগীয় বর্বরতা!

৫ বছরের শিশুর গোপনাঙ্গে গরম পানি ঢেলে মধ্যযুগীয় বর্বরতা!

ক্রাইম প্রতিদিন, ডেস্ক : মধ্যযুগীয় বর্বরতা বলে একটা কথা চালু আছে। এখনকার হিসেবে ৫০০ খ্রিষ্টাব্দ থেকে ১৩০০ খ্রিষ্টাব্দ হচ্ছে মধ্যযুগ। যেকোন নিষ্ঠুর আর অমানবিক অত্যাচার হলেই আমরা সেই মধ্যযুগীয় বর্বরতার কথা বলি। কারণ সে সময় নাকি মানুষের দেহগুলো প্রথমে ছিন্ন ভিন্ন করে, পরে নির্মমভাবে হত্যা করা হত। আর সেই বর্বরতার কিছুটা ছোঁয়া এখনো আমাদের ভিতরে রয়ে গেছে।

প্রত্যেকটা দিন দেশের কোনো না কোনো জায়গায় মধ্যযুগীয় বর্বরতার শিকার হচ্ছেন অনেকেই। যাদের মধ্যে নারীরাতো রয়েছেই বাদ যায়নি শিশুরাও। এমনি এক বর্বর নির্যাতনের অভিযোগ এসেছে কুমিল্লার মনোহরগঞ্জ উপজেলা থেকে।

সেখানকার বিপুলাসার ইউনিয়নের নুরানী হাফেজিয়া ইসলামি একাডেমির পাঁচ বছরের এক শিশু ছাত্রকে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করা হয়েছে। আর এই নির্যাতনের অভিযোগ ওঠেছে ওই মাদ্রাসার এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে।

জানা গেছে, কাঁচি গ্রামের খোরশেদ আলমের ছেলে নোমান ওই মাদ্রাসার আবাসিকে থেকে শিক্ষা নিচ্ছিলেন। আর ওই আবাসিকের ছাত্রদের দায়িত্বে ছিলেন মাদ্রাসার শিক্ষক এমদাদ হোসেন। কিন্তু গত কয়েকদিন ধরে নোমানকে তার বাবা মার সঙ্গে দেখা করতে দিচ্ছিলেন না ওই শিক্ষক। দেখা করতে গেলেই বিভিন্ন অজুহাতে তাদের ফিরিয়ে দিচ্ছিলেন।

এই বিষয়টিতে বাবা মায়ের মনে সন্দেহ হলে, একদিন জোর করেই নোমানের সঙ্গে তারা দেখা করতে যায়। নোমানকে দেখা মাত্রই তারা অবাক হয়ে যায়। কারণ হল- তাদের বুকের ধনের শরীরের বিভিন্ন জায়গায় বেতের আঘাতের ক্ষত চিহ্ন। নিজের সন্তানকে এ অবস্থায় দেখে বাবা মা চিৎকার দিয়ে ওঠেন।

পরে শিশুটির সাথে কথা বলে তারা জানতে পারে, ওই শিক্ষক তার গোপনাঙ্গে গরম পানি ঢেলেও নির্যাতন করেছে। সে কথা শুনেই বাবা মায়ের কান্নায় ভারী হয়ে উঠে ওই স্থান। এ বিষয়টি নিয়ে সমালোচনার ঝড় বইছে ওই এলাকায়। এমনকি শিশু নির্যাতনের এ খবর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও ভাইরাল হয়ে যায়।

এরআগেও শিক্ষক এমদাদ হোসেনের নামে একাধিক ছাত্রকে নির্যাতনের অভিযোগ রয়েছে জানিয়ে এলাকার সচেতন মানুষ ওই শিক্ষককে বিচারের আওতায় এনে সুষ্ঠু বিচারের দাবি করে করেছেন।

আবার কেউ কেউ বলছেন, ২০ হাজার টাকায় এ ঘটনাটি রফাদফার চেষ্টা চলছে।

এদিকে মনোহরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন খান এ বিষয়টি সাংবাদিকদের মাধ্যমে জানতে পেরেছেন বলে জানিয়েছেন। তবে কেউ অভিযোগ করলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনত কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান।

আরও পড়ুন.......

শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন
  • 70
    Shares